অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আফগানিস্তান থেকে আমেরিকানদের স্বদেশে ফিরিয়ে আনতে সংকল্প ব্যক্ত করলেন বাইডেন


হোয়াইট হাউজের ইস্ট রুমে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন আফগানিস্তান থেকে নিরাপদে লোকজনকে সরিয়ে আনার বিষয়ে তাঁর বক্তব্য রাখছেন , ২০ শে আগস্ট ২০২১

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন শুক্রবার তাঁর সংকল্পের পুণরাবৃত্তি করলেন যে, সব আমেরিকান নাগরিক এবং আফগানিস্তানের সেই সব মানুষ যারা সংঘাতের সময়ে নিজেদের জীবনের ঝুঁকি সত্ত্বেও যুক্তরাষ্ট্র-সরকারের সঙ্গে কাজ করেছে তাদের নিরাপদে সরিয়ে না নেওয়া পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্র আফগানিস্তান ত্যাগ করবে না।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন শুক্রবার তাঁর সংকল্পের পুণরাবৃত্তি করলেন যে, সব আমেরিকান নাগরিক এবং আফগানিস্তানের সেই সব মানুষ যারা সংঘাতের সময়ে নিজেদের জীবনের ঝুঁকি সত্ত্বেও যুক্তরাষ্ট্র-সরকারের সঙ্গে কাজ করেছে তাদের নিরাপদে সরিয়ে না নেওয়া পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্র আফগানিস্তান ত্যাগ করবে না।

হোয়াইট হাউজে ভাইস প্রেসিডেন্ট কামালা হ্যারিস এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেনের পাশে দাঁড়িযে বাইডেন বলেন , “ যে সব আমেরিকান স্বদেশে ফিরে আসতে চান , আমরা আপনাদের স্বদেশে ফিরিয়ে আনবো। এ ব্যাপারে ভুল করার কোনই অবকাশ নেই যে এটি বিপজ্জনক। এতে আমাদের সশস্ত্রবাহিনীকে ঝুঁকির মুখে পড়তে হচ্ছে এবং প্রতিকুল পরিস্থিতিতে তা করতে হচ্ছে “।

বাইডেন আরও বলেন আমাদের আফগান মিত্র , সহযোগী এবং যে সব আফগান তাদের লক্ষ্যে পরিণত হতে পারে তাদের সবাইকে নিরাপদে সরিয়ে আনতে , “ আমরা সাধ্যমত সব কিছু করব”।

প্রেসিডেন্ট বলেন যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনী বৃহস্পতিবার কাবুলের হামিদ কারজাই আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর থেকে ৫,৭০০ জনকে নিরাপদে নিয়ে এসেছে এবং কাবুলে তালিবানের প্রবেশের আগের দিন ১৪ই আগস্ট থেকে আজ পর্যন্ত ১৩,০০০ লোককে উদ্ধার করেছে।

বাইডেন আরও বলেন যে যুক্তরাষ্ট্রের বাহিনী কাবুলে বিমান বন্দরের ফটক পেরিয়ে , দেয়ালের অপর পার থেকে ১৬৯ জন আমেরিকানকে নিয়ে এসেছে। তিনি উল্লেক করেন যে দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস, দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল এবং দ্য ওয়াশিংটন পোস্টের যে সব কর্মী সে দেশে ছিলেন তাদের মধ্যে ২০৪ জনকে সফল ভাবে সরিয়ে আনতে তাঁর প্রশাসন কাজ করেছে।

প্রেসিডেন্ট বলেন নিরাপদে এই সব লোককে সরিয়ে আনার জন্য এবং একই সঙ্গে সতর্ক করে দেয়ার লক্ষ্যে তাঁর প্রশাসন অব্যাহত ভাবে তালিবানের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে চলছে।

বাইডেন বলেন , “ আমরা তালিবানকে এটা পরিস্কার করে বলেছি , যে কোন হামলা , আমাদের বাহিনীর উপর যে কোন হামলা কিংবা বিমান বন্দরে আমাদের তত্পরতায় বিঘ্ন সৃষ্টি করা হলে আমরা দ্রুত এবং পূর্ণ শক্তি নিয়ে এর জবাব দিব”।

এটা এখনও পরিস্কার নয় যে ঠিক কতজন আমেরিকান এবং আফগান নাগরিক আফগানিস্তান ছেড়ে আসতে চাইছেন। পররাষ্ট্র বিভাগের মুখপাত্র নেড প্রাইস বলেছেন যে এই সংখ্যা কতগুলো বিষয়ের উপর নির্ভর করছে। তিনি বলেন পররাষ্ট্র বিভাগ যুক্তরাষ্ট্রের সব নাগরিক যারা পররাষ্ট্র বিভাগের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে এবং ঝুঁকিতে থাকা যে সব আফগান যুক্তরাষ্ট্রের সহযোগিতা চাইছেন তাদের সবার সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য কাজ করে যাচ্ছে।

শুক্রবার এক বিবৃতিতে জানানো হয় যে এর আগের ২৪ ঘন্টায় যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনী ১১ টি চার্টার ফ্লাইটের বহির্গমনে সাহায্য করেছে।

এ দিকে শুক্রবার সকালেই বাইডেন আফগানিস্তানের পরিস্থিতি বিষয়ে তার জাতীয় নিরাপত্তা টিমের সঙ্গে বৈঠক করেছেন।

XS
SM
MD
LG