অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

খালেদা জিয়ার মনোনয়নের মাধ্যমে প্রার্থী তালিকা প্রকাশ


দুটি আসনে বেগম খালেদা জিয়াকে মনোনয়ন দেয়ার মধ্য দিয়ে বিরোধী বিএনপি সংসদ নির্বাচনে তাদের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করতে শুরু করেছে। জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলীয় জোটের শরিকদের জন্য প্রায় ৬০টি আসন ছেড়ে দিয়েছে দলটি। সোমবার বিকেলে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর যখন প্রার্থী তালিকা প্রকাশ শুরু করেন তখন এক পর্যায়ে কেঁদে ফেলেন। বলেন, দলীয় চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখে এই প্রথম নির্বাচনে যাচ্ছে বিএনপি।
বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক জামায়াতে ইসলামী নিবন্ধন বাতিল হয়ে যাওয়ায় এবার সরাসরি দলীয় প্রতীকে নির্বাচন করতে পারছে না। তারা স্বতন্ত্র হিসেবে নির্বাচনে অংশ নেবে। সিট ভাগাভাগি নিয়ে এখনও বিএনপির সঙ্গে দর কষাকষি চলছে।
জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতা ড. কামাল হোসেন বলেছেন, যারা ভোটে বাধা দেবে তারা স্বাধীনতা বিরোধী হিসেবে চিহ্নিত হবে। তিনি বলেন, ভোট কেন্দ্র পাহারা দেয়া মানে গৃহযুদ্ধ বাধিয়ে দেয়া নয়।
আসন বণ্টন প্রসঙ্গে ড: কামাল বলেন, রুটি ভাগাভাগি করতে হলে কিছু টানাটানিতো হবেই। আওয়ামী লীগ সরকারের সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক আবু সাইয়িদ গণফোরামে যোগ দিয়েছেন। তিনি পাবনা-১ থেকে ঐক্যফ্রন্টের হয়ে নির্বাচন করবেন। এর আগে সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়ার ছেলে ড. রেজা কিবরিয়া গণফোরামে যোগ দেন। তিনিও হবিগঞ্জ থেকে নির্বাচন করবেন।
জাতীয় পার্টির তরফে ২০০ আসনে প্রার্থীর নাম ঘোষণা করা হয়েছে। দলটি আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোটের অন্যতম শরিক। আসন ভাগাভাগি নিয়ে একাধিক বৈঠক হলেও এখন পর্যন্ত সমঝোতা হয়নি। আওয়ামী লীগ রোববার ২৩০টি আসনে ছাড়পত্র দিলেও একদিন পর দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আনুষ্ঠানিকভাবে তারা এখনও ঘোষণা দেননি। মিডিয়া কোথা থেকে তালিকা পেয়েছে তা তার জানা নেই। সাবেক এমপি ও কলামনিস্ট গোলাম মাওলা রনি বিএনপিতে যোগ দিয়েছেন।
ওদিকে ইভিএম-এ ছয়টি আসনে ভোটের সিদ্ধান্ত হয়েছে। সোমবার বিকেলে এক লটারির মাধ্যমে আসনগুলো বাছাই করা হয়।

আপনার পছন্দমত বেছে নিন

মন্তব্যগুলো দেখান

XS
SM
MD
LG