অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণহীন, বিপর্যয়ের আশঙ্কা


প্রতিদিনই করোনায় মৃত্যু ও আক্রান্তে নতুন রেকর্ড হচ্ছে। হাসপাতালে রোগীর জায়গা হচ্ছে না। আইসিইউ পেতে স্বজনরা হাহাকার করছেন। পরিস্থিতি অনেকটা নিয়ন্ত্রণের বাইরে। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এখনই কার্যকর ব্যবস্থা না নিলে সামনে অবস্থা বিপর্যয়কর হয়ে উঠতে পারে।এই যখন অবস্থা তখন সরকারের একের পর এক সিদ্ধান্ত পরিস্থিতিকে আরো জটিল করে তুলছে।গত রোববার হঠাৎ করেই সারা দেশে লকডাউনের ঘোষণা দেয়া হয়।সোমবার থেকে ১১ দফা বিধি-নিষেধ কার্যকর করায় উল্টো হ-য-ব-র-ল অবস্থা তৈরি হয়েছে। নানা শ্রেণি পেশার মানুষের দাবির মুখে বুধবার থেকে গণপরিবহন খুলে দেয়া হয়েছে। দোকান-পাট বন্ধ থাকার নির্দেশনা থাকলেও অনেক স্থানে তা মানা হচ্ছে না।

‘লকডাউন’ শুরুর দিন থেকেই দোকান খুলে দেয়ার দাবিতে বিক্ষোভ করছেন ব্যবসায়ীরা। বুধবার ঢাকাসহ দেশের বেশ কিছু স্থানে এই দাবিতে বিক্ষোভ হয়েছে। লকডাউন না তুললেও আগামী রোববার থেকে দোকান খোলার ঘোষণা দিয়েছেন সিলেটের ব্যবসায়ীরা।

করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণহীন, বিপর্যয়ের আশঙ্কা
please wait

No media source currently available

0:00 0:02:09 0:00
সরাসরি লিংক

সর্বশেষ এক দিনে ৭ হাজার ৬২৬ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে। এটি এযাবৎকালের মধ্যে সর্বোচ্চ। এই সময়ে মৃত্যু হয়েছে ৬৩ জনের। শনাক্তের এই সংখ্যা যে প্রকৃত সংখ্যা নয় এটি গবেষকরা আগে থেকেই বলে আসছেন। হাসপাতালে নমুনা দিতে আসা অনেকে নমুনা দিতে পারছেন না। আবার অনেকে অসুস্থ হলেও পরীক্ষা বা চিকিৎসা নিতে যাচ্ছেন না। ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে গত শনিবার ৫৭ জন করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দিয়েছিলেন। তাদের ২৮ জনেরই করোনা পজেটিভ আসে।

অব্যাহতভাবে করোনা রোগী বাড়তে থাকায় ঢাকার হাসপাতালগুলোতে সাধারণ রোগীদের নির্ধারিত শয্যা কোভিড রোগীদের জন্য প্রস্তুত করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে বিভিন্ন হাসপাতালে এ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বুধবার এক অনুষ্ঠানে বলেছেন, করোনা রোগীর চাপের কারণে স্বাস্থ্যকর্মীদের হিমশিম খেতে হচ্ছে। চিকিৎসকরা ছুটি পাচ্ছেন না। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে না পারলে সামনে হাসপাতালে রোগীদের জায়গা দেয়া সম্ভব হবে না।

সংক্রমণ আশঙ্কাজনকভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় দেশের সকল মসজিদ ও ধর্মীয় উপাসনালয়ে গণজমায়েত নিষিদ্ধ করেছে ধর্ম মন্ত্রণালয়। বুধবার মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ নির্দেশনা জারি করা হয়। করোনা আক্রান্ত হয়ে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কণ্ঠযোদ্ধা ও একুশে পদকপ্রাপ্ত লোকসংগীত শিল্পী ইন্দ্রমোহন রাজবংশী মারা গেছেন। বুধবার সকালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিইউতে তার মৃত্যু হয়।

XS
SM
MD
LG