অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

করোনা ভাইরাসের প্রতিষেধকের জন্য সারা পৃথিবী ভারতের দিকে চেয়ে রয়েছে- বিল গেটস


বিল গেটস

মাইক্রোসফট এর প্রতিষ্ঠাতা কর্ণধার বিল গেটস বলেছেন, করোনা ভাইরাসের প্রতিষেধকের জন্য সারা পৃথিবী ভারতের দিকে চেয়ে রয়েছে। কারণ ভারতেরই ক্ষমতা রয়েছে বিশাল পরিমাণ ওষুধ সাধ্যের মধ্যে দাম রেখে তৈরি করা।

মাইক্রোসফট এর প্রতিষ্ঠাতা কর্ণধার বিল গেটস বলেছেন, করোনা ভাইরাসের প্রতিষেধকের জন্য সারা পৃথিবী ভারতের দিকে চেয়ে রয়েছে। কারণ ভারতেরই ক্ষমতা রয়েছে বিশাল পরিমাণ ওষুধ সাধ্যের মধ্যে দাম রেখে তৈরি করা।

জনহিতকর প্রতিষ্ঠান 'বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন'-এর বার্ষিক গোলকিপার রিপোর্ট আজই প্রকাশিত হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, পৃথিবীতে এতদিন ধরে যে সব বিষয়ে উন্নতি হয়েছিল এবং ২০৩১ সালের মধ্যে বিভিন্ন ক্ষেত্রে মানুষের দূর্গতি ঘোচার যে আশা জাতিসংঘ দেখেছিল, এই এক মারণ ভাইরাসের ধাক্কায় তা কুড়ি বছর পিছিয়ে গিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র বহু ট্রিলিয়ন ডলার সাহায্য দিলেও সারা বিশ্বে যে ক্ষতি হয়েছে আর হতে চলেছে, তার তুলনায় তা যথেষ্ট নয়।

এই ব্যাপারে বিল গেটস-এর কাছে বিস্তারিত জানতে চাওয়া হয়েছিল। ভারতে তৈরি প্রতিষেধক সম্পর্কে সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে বিল গেটস বলেন, ভারতের দিকে সবাই উন্মুখ হয়ে তাকিয়ে আছে। কারণ ভারত এ ধরনের প্রতিষেধক সস্তায় প্রচুর পরিমাণে তৈরি করতে পারে। এখনই অন্তত তিন চারটি ওষুধ কোম্পানি ভারতে এই অসুখের প্রতিষেধক তৈরীর কাজে ব্যস্ত। তাদের মধ্যে সিরাম ইন্ডিয়াকে গেটস ফাউন্ডেশন আর্থিক সাহায্য দিচ্ছে। আশা করা যাচ্ছে ২০২১ সাল নাগাদ প্রতিষেধক বেরিয়ে যাবে।

সিরাম কথা দিয়েছে, প্রতি ডোজ প্রতিষেধকের দাম তিন ডলারের বেশি হবে না। যদিও বিল গেটস একইসঙ্গে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, বিপুল পরিমাণ প্রতিষেধক যতক্ষণ না প্রতিটি মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়া যাচ্ছে, ততদিন পর্যন্ত মানুষ সম্পূর্ণ নিরাপদ ভাবার কোনও কারণ নেই। এই অসুখের ইমিউনিটি তৈরি হতে যথেষ্ট সময় লাগবে। তার মধ্যে আরও বহু কোটি মানুষ প্রাণ হারাতে পারেন।

গতকালই ভারতের সংসদে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন বলেছিলেন, ২০২১ সালের মধ্যে করোনার প্রতিষেধক ভারত তৈরি করতে পারবে বলে আশা করা যাচ্ছে। তার উত্তরে আজ সিরাম

ইন্ডিয়ার কর্ণধার আধার পুনেওয়ালা বলেছেন, ২০২১ সালে প্রতিষেধক হয়তো তৈরি করা যাবে, কিন্তু যতটা দরকার সেই বিপুল পরিমাণে তা উৎপাদনের জন্য আরও ৪/৫ বছর সময় লাগবে। ২০২৪ সালের আগে সারাবিশ্বে এই প্রতিষেধক পাওয়ার আশা করা ঠিক হবে না। দীপংকর চক্রবর্তী, ভয়েস অফ আমেরিকা, কলকাতা

সরাসরি লিংক


XS
SM
MD
LG