অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

পাকিস্তানের পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচির জনক আবদুল কাদীর খান মারা গেছেন


ফাইল ছবি, পাকিস্তানী জনগণ দেশের পরমাণু প্রকল্পের জনক ড: আব্দুল কাদির খানের সমর্থনে পতাকা হাতে সমাবেশে যোগ দিয়েছেন ২৭শে মে, ২০০৭/ছবি আরিফ আলী/এএফপি

পাকিস্তানের পরমাণু কর্মসূচির জনক হিসাবে বিবেচিত আব্দুল কাদীর খান রবিবার সকালে ৮৫ বছর বয়সে দীর্ঘকালীন অসুস্থতার পর ইসলামাবাদের একটি হাসপাতালে পরলোক গমন করেনI

পাকিস্তানকে বিশ্বের প্রথম একটি মুসলমান পরমাণু শক্তিধর দেশ হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করতে খানকে যদিও জাতীয় নায়ক হিসাবে গণ্য করা হয়, তবে একাধারে পশ্চিমের তরফ থেকে ইরান, লিবিয়া ও উত্তর কোরিয়ার কাছে পরমাণু প্রযুক্তি চোরাচালানের জন্যও তাঁকে দোষারোপ করা হয়েছেI

পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় রবিবার এক ঘোষণায় জানায় যে রাষ্ট্রীয় পর্য্যায়ে তাঁর অন্তেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন করা হবে এবং পাকিস্তানের পতাকা অর্ধ-নমিত রাখা হবেI পাকিস্তান সরকার আরো ঘোষণা করে যে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় এবং স্বীকৃতির মাধ্যমে তাঁর অন্তেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন করা হবে এবং সামরিক বাহিনীর প্রধানরা অন্তেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠানে যোগ দেবেনI

প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেন, তিনি এই বিজ্ঞানীর তিরোধানে গভীরভাবে মর্মাহতI তিনি পাকিস্তানী জনগণের জন্য তাঁকে এক "জাতীয় প্রতীক" হিসাবে চিহ্নিত করেনI

টুইটার বার্তায় প্রধানমন্ত্রী খান বলেন, পরমাণু শক্তিধর দেশ হিসাবে স্বীকৃতি লাভে তাঁর অসাধারণ অবদানের জন্য তিনি দেশের ভালোবাসা অর্জন করেছেনI পাকিস্তানের চির প্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের নাম উল্লেখ করে তিনি জানান,"তাঁর অবদান আমাদের বৃহত্তর আগ্রাসী পরমাণু শক্তিধর প্রতিবেশী দেশের বিরুদ্ধে নিরাপত্তা নিশ্চিত করেছে"I

প্রয়াত পাকিস্তানী বিজ্ঞানী বেলজিয়ামের লুভেন ক্যাথলিক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ধাতুবিদ্যা প্রকৌশলীতে ডক্টরেট ডিগ্রি লাভ করেনI

১৯৭০-এর দশকে পাকিস্তানে ফিরে আসার আগে মি: খান নেদারল্যান্ডস'র একটি পরমাণু গবেষণা প্রকল্পে কাজ করেছেনI যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক কার্নিগি এন্ডোউমেন্ট ফর ইন্টারন্যাশনাল পিস সংস্থার মতে, তাঁর দেশকে পরমাণু শক্তিধর বানাতে তখনই তিনি সেট্রিফিউজ সমৃদ্ধকরণ প্রযুক্তি চুরি করে নিয়ে আসেন বলে কথিত আছেI

XS
SM
MD
LG