অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

দুর্যোগ মোকাবেলা ও ব্যাবস্থাপনা


Bangla hello Washington graphic new

হ্যালো ওয়শিংটনের বিষয়: “দুর্যোগ মোকাবেলা ও ব্যাবস্থাপনা”। এ নিয়ে কথা বলেলন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক নজরুল ইসলাম; ভারতের পরিবেশ বিজ্ঞানী ড. নিতাই কুন্ডু এবং বাংলাদেশ পরিবেশ সাংবাদিক ফোরামের চেয়ারম্যান কামরুল ইসলাম চৌধুরী।

বাংলাদেশে আজকের টেলিভিশনের খবরে দেখানো হলো; ১০ বছরের মধ্য বাংলাদেশ ভয়াবহ ভূমিকম্প আঘাত হানতে পারে। অথচ তেমন ভালো প্রস্তুতি নেই। আমরা প্রতিমুহুর্তেই দেখছি সারা দুনিয়ায় চলছে নানা ধরণের প্রাকৃতিক দুর্যোগ। ঝড়, বন্যা, খরা, দাবানল, শৈত্যপ্রবাহ—সুনামী ভূমিকম্প; বিশ্বের কোথাও না কোথাও লেগেই আছে। সবুজ পৃথিবীর জন্য আমরা নিরন্তর চেষ্টা চালাচ্ছি। ক্ষতিকর গ্রিন হাউস গ্যাস নির্গমন রোধে সভা-সম্মেলন চলছে। কিন্তু বাস্তবে এর কোনো কার্যকারিতা নেই। বেড়েই চলেছে ক্ষতিকর কার্বন-ডাই-অক্সাইড নির্গমন। ক্ষয়ে যাচ্ছে ওজোন স্তর।

ভূমিকম্প, সুনামী বন্যা ক্ষরা, সাইক্লোন, ঘুর্নিঝড়, কিংবা যে কোনো ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলায় প্রস্তুতি কতোটা রয়েছে কিভাবে তা করা যায়; এসব দুর্যোগ মোকাবেলা ও ব্যাবস্থাপনার বিষয় নিয়ে আজ আমরা আলোচনা করবো। স্রোতাদের প্রশ্ন ও মন্তব্য নিয়ে

সুপ্রিয় স্রোতা; সম্মানিত আলোচকদের কাছে এ বিষয়ে কথা শোনার আগে দেড় মিনিটের একটি ছোট্ট্ সাক্ষাৎকার শোনাতে চাই। গতকাল মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রে পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের আমন্ত্রনে একটি যুব দলের সঙ্গে ভয়েস অব আমেরিকায় আমাদের বাংলা বিভাগে এসেছিলেন; নেপালের কাঠমান্ডু থেকে; স্মৃতি রুংগানা নামের এক তরুণ গনমাধ্যমকর্মী। নেপাল ভূমিকম্পের একজন প্রত্যক্ষদর্শী তিনি। নেপালের সেই ভূমিকম্পের সময় স্মৃতি রুংগানার কাছে জানতে চেয়ছিলাম, কি দেখেছিলেন তিনি, কেমন ছিল সেই অভিজ্ঞতা।

চলতি বছরই আমরা সবাই জানি; এপ্রিলে নেপালে ৭ দশমিক ৯ মাত্রার ভূমিকম্পে ৯ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছিল। ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্ত দুই দেশের হতাহত নাগরিক, তাদের স্বজন ও পরিবারের প্রতি আমাদের গভীর সমবেদনা।

স্মৃতি বলছিল ১০ হাজারের বেশি মৃত্যু ঘটেছে নেপালে। স্মৃতি রুংগানার পরামর্শ; সরকার যেনো শহরের ওপর ভার কমানোর চেষ্টা করে। প্রাকৃতিক দুর্যোগের সর্বসাম্প্রতিক উদাহরণ ২৬শে অক্টোবর সোমবার পাকিস্তান ও আফগানিস্তান সীমান্ত অঞ্চলের হিন্দুকুশ পর্বতমালায় ৭ দশমিক ৫ মাত্রার ভূমিকম্প। প্রায় আড়াই হাজার কিলোমিটার দূরের বাংলাদেশ থেকেও তা অনুভূত হয়েছে। সাড়ে তিন শতাধিক মানুষের মৃত্যু হলেও এই সংখ্যা আরও বাড়ার আশঙ্কা। শোনা যাক আলোচনা।

XS
SM
MD
LG