অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাগদাদে আমেরিকান দূতাবাস এলাকা এখন শান্ত


বিক্ষোভকারিরা দূতাবাস অঞ্চল ত্যাগ করছে

ইরান সমর্থিত আধা সামরিক বাহিনী ঐ স্থান ত্যাগ করার পর আজ ইরাকের রাজধানীতে অবস্থিত যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসের পরিস্থিতি ছিল শান্ত।

এই অবরোধ তুলে নেয়ায় মিলিশিয়া ও তাদের সমর্থকদের দ্বারা দূতাবাস প্রাঙ্গনে আক্রমণ, দূতাবাসের অভ্যর্থনা স্থানের ভাংচুর এবং বিভিন্ন স্থানে আগুন ধরিয়ে দেয়ায় দু দিন ব্যাপী অচলাবস্থার অবসান ঘটলো। তারা ইরান সমর্থিত একটি মিলিশিয়া গোষ্ঠির উপর যুক্তরাষ্ট্রের বিমান হামলার বিরুদ্ধে ক্ষুব্ধ প্রতিবাদ জানাচ্ছিল।

এক রকেট আক্রমণে একজন আমেরিকান ঠিকাদারের মৃত্যুর পর , কাতায়েব হেজবুল্লাহর বিরুদ্ধে ইরাক ও সিরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্র এই বিমান হামলা চালায়।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রী মাইক পম্পেও কাতায়েব হেজবুল্লাহর নেতা এবং অন্যান্যদের সন্ত্রাসবাদী বলে দোষারোপ করেন এবং বাগদাদে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসে হামলা চালানোর এই সব সন্ত্রাসবাদীকে দায়ী করেন।

সেখানকার দূতাবাসের কনস্যুলার কার্যক্রম স্থগিত করা হয় এবং পররাষ্ট্র দপ্তর যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের ঐ এলাকা থেকে দূরে থাকার পরামর্শ দেয়।

এ দিকে পেন্টাগন মধ্যপ্রাচ্যে অতিরিক্ত সাড়ে সাত শ সৈন্য পাঠাচ্ছে । যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী মার্ক এস্পার এই সৈন্য পাঠানোর বিষয়টিকে যথার্থ এবং সতর্কতামূলক পদক্ষেপ বলে বর্ণনা করেন।

XS
SM
MD
LG