অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

জলবায়ু পরিবর্তনে বৈশ্বিক সহযোগিতার উপর জোর দিলেন কেরি


জলবায়ু বিষয়ে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের বিশেষ দূত হিসবে জন কেরি এশিয়ায় তাঁর প্রথম সফরের সময়ে যুক্তরাষ্ট্র ও চীন এবং অন্যত্রও জলযায়ু পরিবর্তনের বিষয়ে সহযোগিতার উপর জোর দিচ্ছেন কারণ তিনি বলছেন,  “কোন একটি দেশ নিজেই এই সমস্যার সমাধান করতে পারে না, সেটা অসম্ভব । আমাদের প্রত্যকেরই প্রয়োজন একত্রে বসে এই কাজটি করা”।

জলবায়ু বিষয়ে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের বিশেষ দূত হিসবে জন কেরি এশিয়ায় তাঁর প্রথম সফরের সময়ে যুক্তরাষ্ট্র ও চীন এবং অন্যত্রও জলযায়ু পরিবর্তনের বিষয়ে সহযোগিতার উপর জোর দিচ্ছেন কারণ তিনি বলছেন, “কোন একটি দেশ নিজেই এই সমস্যার সমাধান করতে পারে না, সেটা অসম্ভব । আমাদের প্রত্যকেরই প্রয়োজন একত্রে বসে এই কাজটি করা”। আবু ধাবিতে জলবায়ু বিষয়ক আঞ্চলিক সংলাপে যোগ দেয়ার পর সিএনবিসিকে দেয়া এক মন্তব্য কেরি বলেন, “এটা চীন সম্পর্কিত নয়, এটা চীনের বিরুদ্ধেও নয়। এটি চীন, যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, রাশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, জাপান, কোরিয়া, অস্ট্রেলিয়া এবং আরও কিছু দেশ যারা উল্লেখযোগ্য পরিমাণ নিষ্ক্রমণ ঘটাচ্ছে তাদেরকে নিয়ে এবং যুক্তরাষ্ট্র ও চীন সব চেয়ে বেশি”।

কেরি এই মন্তব্যটি করেন রোববার তাঁর ভারত ও বাংলাদেশ সফরের আগেই । রয়টার জানিয়েছে গতকাল নতুন দিল্লিতে কেরি বলেন, “ভারত জলবায়ু সম্পর্কে কাজ করে যাচ্ছে’। তিনি ভারতের প্রতি বলেন, “আপনারা নবায়নযোগ্য জ্বালানি ব্যবহারের সন্দেহাতীত ভাবে বিশ্বে নেতৃত্ব দিচ্ছেন”। ভারত ও বাংলাদেশ উভয় স্থানে তাঁর লক্ষ্য হচ্ছে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলার ব্যাপারে আন্তর্জাতিক প্রতিশ্রুতি পালনে বাইডেন প্রশাসনের প্রচেষ্টার উপর জোর দেয়া । যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী কেরি এই সফরের সময়ে জলবায়ু বিষয়ক চীনের প্রধান ব্যক্তি শি জেনহুয়ার সঙ্গে কোন বৈঠক করছেন না। শি হচ্ছেন চীনের কার্বন নিষ্ক্রমণ ২০৬০ সালের মধ্যে বন্ধ করানোর বিষয়ে মূল ব্যক্তি । চীন ও যুক্তরাষ্ট্র মিলে বিশ্বের ৪৩% কার্বন ডায়োক্সাইড নিষ্ক্রমণ ঘটিয়ে থাকে।

XS
SM
MD
LG