অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

মিয়ানমারের সাথে আলোচনা রক্তপাত বন্ধ করবে বলে কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রীর আশাবাদ


২০২১ সালে ভিডিওর মাধ্যমে অনুষ্ঠিত অ্যাসোসিয়েশন অফ সাউথইস্ট এশিয়ান নেশনস সম্মেলনে নেতাদের দেখা যাচ্ছে। (ছবি- এপি)

শুক্রবার শুরু হতে যাওয়া দুই দিনের সফরের আগের সন্ধ্যায় কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী হুন সেন-এর বিরুদ্ধে “বিশৃঙ্খল আচরণ” এর অভিযোগ উঠেছে। সেখানে তিনি বলেন যে মিয়ানমারের সামরিক জান্তার সাথে ফলপ্রসূ আলোচনা, প্রায় ১২ মাস আগে সামরিক বাহিনী ক্ষমতা দখল করার পর সেখানে শুরু হওয়া রক্তপাত বন্ধ করতে পারে।

যদিও এই সফরের পেছনে মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে হুন সেনকে কিংবদন্তি হিসেবে প্রতিষ্ঠা এবং এই বছর অ্যাসোসিয়েশন অফ সাউথইস্ট এশিয়ান নেশনস-এর প্রধান হিসেবে তার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি লাভের বাসনা, যেই পদটি তাকে মিয়ানমারের সামরিক জান্তার নেতা জেনারেল মিন অং হ্লাইং-এর সাথে আলোচনার সুযোগ করে দিয়েছে। অন্যান্য সামরিক নেতাদের সাথেও হুন সেনের সাক্ষাত হবে বলেও আশা করা হচ্ছে।

কম্বোডিয়ার একটি থিংক ট্যাঙ্ক ফিউচার ফোরাম এর সভাপতি অউ ভিরাক বলেন হুন সেন – যিনি কিনা বলেছেন যে তিনি আগামী বছরের নির্বাচনের পর অবসর গ্রহণ করবেন – দেশটিকে একটি আঞ্চলিক প্রভাবশালী দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে চেয়েছেন, যাতে করে দেশটি তার শুরুর দিকের ব্যর্থ রাষ্ট্রের এবং তার পরে একটি সংঘাত-পরবর্তী দেশের ইতিহাসকে পেছনে ফেলে আসতে পারে।

তিনি বলেন, “আসিয়ান-এর সভাপতি হিসেবে আমি মনে করি যে বার্মিজ প্রসঙ্গটি, বা মিয়ানমার প্রসঙ্গটি, কখনোই চলে যাবে না এবং আগামী বছরের আলোচনায় সবচেয়ে বড় প্রসঙ্গগুলোর মধ্যে একটি হবে। সেই হিসেবে কম্বোডিয়ার জন্য প্রসঙ্গটি উত্থাপন ব্যতীত তেমন কোন বিকল্প নেই”।

তিনি আরও যোগ করেন, “আমার মনে হয় এ বিষয়ে হান সেন নিজেই নিজের সবচেয়ে বড় অনুপ্রেরণা এবং তিনি নিজের যে ভাবমূর্তি রেখে যেতে চান, তবে একই সাথে তিনি আঞ্চলিক নেতা হিসেবে যে ভাবমূর্তি তুলে ধরতে চান। আমার মনে হয় এটিই সবচেয়ে বড় অনুপ্রেরণা”।

XS
SM
MD
LG