অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ভারতের রাফাল বিমান মোকাবিলায় চীনা জেট কেনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে পাকিস্তান


একটি চীনা জে-১০ যুদ্ধবিমান (ফাইল ছবি)

পাকিস্তানের সামরিক বাহিনী বুধবার নিশ্চিত করেছে, তারা প্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের বিমান বাহিনীকে মোকাবিলা করার জন্য , চীন থেকে বহুমুখী জে-টেন যুদ্ধবিমান কিনছে।

সেনাবাহিনীর মুখপাত্র মেজর-জেনারেল বাবর ইফতিখার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, “এটি আমাদের বিমান বাহিনীর নৌবহরকে উন্নততর করার এবং সম্ভাব্য সর্বোত্তম প্রযুক্তি উপলব্ধ করার একটি পদক্ষেপ। কারণ আমরা জানি, অন্য [ভারতীয়] পক্ষ থেকে কী ধরনের প্রযুক্তি আহরণ করছে ”।

জে-টেন হল একটি একক-ইঞ্জিন যুক্ত যুদ্ধবিমান, যা ২০০৫ সাল থেকে চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি এয়ার ফোর্স (পিএলএএএফ) ব্যবহার করছে বলে জানা গেছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ রশিদ আহমেদ সর্বসাধারণের জন্য একটি অনুষ্ঠানে চীনা জেট কেনার কথা প্রকাশ করার ঠিক কয়েকদিন পর, ইফতিখার বলেন, জে-টেন ভারত মোতায়েনকৃত ফরাসি ড্যাসল্ট রাফেল বিমানের পাল্টা ব্যবস্থা হিসাবে কাজ করবে।

তবে ঠিক কয়টি বিমান কেনা হচ্ছে, তা বলতে রাজি হননি সেনা মুখপাত্র।

৩৬টি ফরাসি যুদ্ধবিমান কেনার জন্য ফ্রান্সের সাথে ভারতের চুক্তির কথা প্রথম ২০১৫ সালে ঘোষণা করা হয়েছিল৷ ভারতের প্রতিরক্ষা প্রতিমন্ত্রী অজয় ভাট গত জুলাইয়ের শেষের দিকে সাংবাদিকদের বলেন, ইতোমধ্যে ২৬টি বিমান সরবরাহ করা হয়েছে, বাকিগুলি ২০২১ সালের শেষ নাগাদ পাওয়া যাবে৷

১৯৪৭ সালে ব্রিটেনের কাছ থেকে স্বাধীনতা লাভের পর থেকে, পাকিস্তান ও ভারত যে মোট তিনটি যুদ্ধ করেছে তার দুটিই বিতর্কিত কাশ্মীর অঞ্চল নিয়ে ।

তবে পাকিস্তানের কাছে জেট বিক্রির বিষয়ে চীন আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো মন্তব্য করেনি।

পাকিস্তানি বিমান বাহিনীর বহরে একক ইঞ্জিনের জেএফ-সেভেনটিন যুদ্ধবিমানও রয়েছে, যা পাকিস্তান ও চীন যৌথভাবে তৈরি করেছে।

XS
SM
MD
LG