অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

লোকজনদের আফগানিস্তান ছাড়তে বাধা না দিতে তালিবানের প্রতিশ্রুতির কথা মনে করিয়ে দেয়া হচ্ছে- ব্লিঙ্কেন


যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি  ব্লিঙ্কেন এবং প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন কাতারের দোহায় কাতারের উপ প্রধানমন্ত্রী ও অন্যদের সঙ্গে বৈঠক করেন। সেপ্টেম্বর ৭, ২০২১ - এপি

মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন বলেছেন বৈধ কাগজপত্র থাকা লোকজনদের আফগানিস্তান ছেড়ে আসতে বাধা না দিতে তালিবানের প্রতিশ্রুতির কথা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় পর্যবেক্ষণ করছে বলে সম্প্রতি তাদেরকে তা মনে করিয়ে দেয়া হচ্ছে।

কাতার সফর কালে ব্লিঙ্কেন বলেন দ্বৈত নাগরিকসহ আফগানিস্তানে এখনো যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় ১০০ জন লোক রয়েছেন বলে মনে করা হচ্ছে । তিনি বলেন তাদের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সরাসরি যোগাযোগ রয়েছে। তাদের মধ্যে যে যখনই আফগানিস্তান ছাড়তে চান তাকে সেভাবেই সহায়তা করতে কর্মকর্তাদেরকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন তালিবান তাঁদের প্রতিশ্রুতি রক্ষা করে গত ২৪ ঘণ্টায় ৪ সদস্যের একটি আমেরিকান পরিবারকে স্থলপথে নিরাপদে আফগানিস্তান ছেড়ে আসতে সহায়তা করেছে। সোমবার পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের একজন শীর্ষ কর্মকর্তা বলেন তালিবান এ সম্পর্কে অবগত ছিল, তবে তারা কোন দেশে গেছেন নির্দিষ্ট করে জানায়নি।

তালিবান আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার পর থেকে সেখানে থাকা আমেরিকান, ঝুঁকিতে থাকা আফগান নাগরিক এবং অন্যান্য বিদেশীদেরকে সরিয়ে দিতে সহায়তা করায় কাতারের জনগণকে গভীর কৃতজ্ঞতা জানান ব্লিঙ্কেন। তিনি বলেন ৫৮,০০০ লোকের মধ্যে অনেকেই যারা দোহা হয়ে গেছেন তাঁরা, “ আরও শান্তিপূর্ণ এবং আশাব্যঞ্জক ভবিষ্যতের এই যাত্রায় প্রথমে কাতারেই থেমেছিলেন।

আফগানিস্তান পরিস্থিতি ছাড়াও বাণিজ্য, সন্ত্রাস নিরসন এবং মানবিক সহায়তা নিয়ে আলোচনার পর সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময়ে তাঁর পাশে ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন, কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ বিন আব্দুলরাহমান আল সানি,কাতারের প্রতিরক্ষামন্ত্রী খালিদ বিন মোহাম্মেদ আল আতিয়াহ।

কাবুল বিমানবন্দর ছেড়ে তালিবান শহরের দিকে সরে যাওয়ার পর ঐ এলাকায় কয়েকদিন ধরে বিশৃঙ্খল অবস্থা চলে লোকজনদেরকে সরিয়ে নেয়ার লক্ষে বিমানবন্দরের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কাজ করছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের সেনা সদস্যরা। সেই সময় ইসলামিক স্টেট খোরাসান জঙ্গিরা হামলা করলে যুক্তরাষ্ট্রের ১৩ জন কর্মী এবং ১৬৯ জন আফগান নাগরিক মারা যান।

মঙ্গলবার দোহায় অস্টিন এবং ব্লিঙ্কেন একটি প্রক্রিয়া- প্রতিষ্ঠান ও যুক্তরাষ্ট্রের সেনা এবং কূটনীতিকদের সঙ্গে দেখা করেছেন।

পরে অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেনের জার্মানির রামস্টেইনে যুক্তরাষ্ট্রের বিমান ঘাঁটিতে যুক্তরাষ্ট্রের সেনা সদস্য এবং আফগান শরণার্থীদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করার কথা রয়েছে।

মধ্যপ্রাচ্যে অস্টিনের সফরসুচির মধ্যে রয়েছে বাহরাইন, কুয়েত ও সৌদি আরব সফর।

XS
SM
MD
LG