অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইন্দোনেশিয়ার বন্দরে নামলেন ১২০ জন রোহিঙ্গা শরনার্থী


রোহিঙ্গা শরনার্থীদের নিয়ে ইন্দোনেষিয়ার একটি বন্দরে ভিড়লো কাঠের নৌকা। ছবি : ৩১শে ডিসেম্বর , এপি

১২০ জন রোহিঙ্গা মুসলমানকে বহনকারী একটি নৌকা দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় আচেহ প্রদেশে কয়েকদিন ধরে ভাসমান থাকার পর নৌবাহিনীর একটি জাহাজ নৌকাটিকে বন্দরে নিয়ে আসে বলে কর্মকর্তারা শুক্রবার জানিয়েছেন।

শরনার্থীদের বহনকারী কাঠের এই নৌকাটি ছিদ্র হয়ে যায় এবং তার ইঞ্জিনও নষ্ট হয়ে গিয়েছিল। যাত্রীদের , যাদের বেশির ভাগই ছিল নারী ও শিশু, উদ্ধার করার এ প্রচেষ্টা শুরু হয় যখন বুধবার ইন্দোনেশিয়ার সরকার জানায় যে ঐ নৌকার অবস্থা এতটাই খারাপ যে তারা নৌকাটিকে বন্দরে ভিড়বার অনুমতি দিচ্ছে।

আচে প্রদেশের বিরুয়েন জেলার উপকুল থেকে ৮৫ কিলোমিটার (৫৩ মাইল ) অবস্থিত এই ভাঙা নৌকাটিকে নৌ-বাহিনী উত্তর আচে জেলার একটি উপকুলীয় শহরের গিউকুয়ে সমুদ্র বন্দরে নিয়ে আসে বলে নৌ বাহিনীর পশ্চিম ফ্লিটের কমান্ড মুখপাত্র কর্নেল লা ওদে এম হলিব জানিয়েছেন। হলিব বলেন প্রচন্ড ঢেউ এবং খারাপ আবহাওয়ার কারণে নৌ বাহিনীর জাহাজটি ঘন্টায় মাত্র ৫.৭মাইল বেগে নৌকাটিকে টেনে আনে যাতে নৌকাটি ডুবে না যায়। নৌকাটি ইন্দোনেশিয়ার সময় অনুযায়ী শুক্রবার মধ্যরাতের পর কুলে এসে ভিড়ে।

কর্তৃপক্ষ বন্দর থেকে রোহিঙ্গা শরনার্থীদের বাসে করে নিকটবর্তী একটি গুদামে নিয়ে আসে যেখানে তাদের অস্থায়ী আশ্রয় দেওয়া হয়। হলিব বলেন শরনার্থীদের সবারই করোনাভাইরাসের পরীক্ষা নেওয়া হবে।

জাতিসংঘের শরনার্থী সংস্থা বলেছে এই মহামারির সময়ে আন্তর্জাতিক গণস্বাস্থের নিয়ম অনুযায়ী কোয়ারান্টিন প্রক্রিয়া সহ রোহিঙ্গাদের ব্যাপারে তারা ইন্দোনেশিয়ার সরকার এবং স্থানীয় সম্প্রদায়কে সব রকমের সহায়তা প্রদানে প্রস্তুত।

XS
SM
MD
LG