অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

তালিবান নারী সাংবাদিকদের কাজ করতে দিচ্ছে না


ফাইল ফটো- রেডিও উপস্থাপক শুক্রিয়া ওয়ালী, কান্দাহারের মর্মান রেডিও স্টেশনে সম্প্রচারের সময় খবর পড়ছেন। ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০।

আফগানিস্তানে একটি রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন সম্প্রচারে কর্মরত দুজন নারী সাংবাদিক বলেছেন যে তালিবান তাদের কাজ করতে দিচ্ছে না। গত রবিবার কাবুলে প্রবেশ করার পর থেকে তালিবান রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমসহ সরকারি সংস্থাগুলির নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে। জাতীয় রেডিও টেলিভিশন আফগানিস্তানের (RTA) সাংবাদিকরা কাজে যোগ দিতে গেলে, কিছু নারীকে ভবনে প্রবেশ করতে বাধা দেয়া হয়।

অনলাইনে পোস্ট করা একটি ভিডিওতে, আরটিএ সংবাদ পাঠক শবনম খান ডওরান বলেন যে ভবনে প্রবেশে পুরুষ সহকর্মীদের অনুমতি দেওয়া হয়েছে কিন্তু তাকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়। দাউরান, যিনি ছয় বছর ধরে সাংবাদিকতা করছেন বলেন,"আমার অফিসের কার্ড থাকা সত্ত্বেও আমাকে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি পুরুষ কর্মচারীরা যাদের অফিসের কার্ড রয়েছে তাদের অফিসে প্রবেশ করতে দেয়া হয়। কিন্তু আমাকে বলা হয়েছে যেহেতু প্রশাসন বদলেছে তাই আমি কাজ করতে পারবোনা”।

আরেকজন আরটিএ সঞ্চালক খাদিজা আমিন, ব্যক্তি মালিকানাধীন টোলো নিউজকে জানান মঙ্গলবার তাকে তার অফিসে ঢুকতে দেওয়া হয়নি এবং অন্যান্য সহকর্মীদেরও পরে ফিরিয়ে দেওয়া হয়।আমিন বলেন, তারা তালিবান-নিযুক্ত নতুন পরিচালকের সাথে কথা বলেছেন, যারা তাদের বলেছে যে তারা কাজ করতে পারবে কিনা তা নিয়ে দলটি শীঘ্রই সিদ্ধান্ত নেবে।

তিনি আরও বলেন যে তালিবান আরটিএর অনেক অনুষ্ঠান পরিবর্তন করেছে এবং সেখানে কোন নারী উপস্থাপক নেই।একজন সাংবাদিক যিনি আরটিএ -তে কাজ করতেন বলেন তিনি তার প্রাক্তন সহকর্মীদের নিয়ে চিন্তিত।

পরিচয় প্রকাশ না করার শর্তে ভিওএকে এক সাংবাদিক বলেন, "দুর্ভাগ্যবশত, আমরা তালিবানদের যুগে ফিরে যাচ্ছি। আমি আমার সহকর্মীদের নিরাপত্তা নিয়ে খুব উদ্বিগ্ন।"

ক্ষমতা দখলের পর তাদের প্রথম সংবাদ সম্মেলনে, তালিবান বলেছিল যে নারীদের অধিকারকে শরিয়াহ বা ইসলামী আইন অনুযায়ী সম্মানিত করা হবে। গোষ্ঠীটির মুখপাত্র আরও বলেছিলেন , যতক্ষণ পর্যন্ত গণমাধ্যম ন্যায্য এবং জাতীয় ঐক্যের খবর প্রচার করবে ততদিন তারা স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারবে।

XS
SM
MD
LG