অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আফগানিস্তানের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ দূত পদত্যাগ করেছেন


আফগানিস্তানের সমন্বয় সাধনে যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ দূত জালমি খলিলজাদ ওয়াশিংটনে সিনেট ফরেন রিলেশনস কমিটির শুনানিতে সাক্ষ্যদান করছেন, ফাইল ছবি, ২৭শে এপ্রিল, ২০২১, ছবি, টি জে কার্কপ্যাট্রিক/রয়টার্স

আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বিশৃঙ্খলময় সেনা প্রত্যাহারের ২ মাসের কম সময়ে আফগানিস্তান বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ দূত, জালমি খলিলজাদ পদত্যাগ করতে চলেছেনI সোমবার সন্ধ্যায় যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন এক বিবৃতিতে খলিলজাদের প্রস্থানের কথা ঘোষণা করেনI তাঁর সহকারী টমাস ওয়েস্ট তাঁর স্থলাভিষিক্ত হবেনI

ব্লিঙ্কেন বলেন, "আমেরিকান জনগণের প্রতি তাঁর বহু দশকের সেবার জন্য আমি আমার কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি"I

খলিলজাদ গত ৩ বছর ধরে প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প ও প্রেসিডেন্ট বাইডেনের অধীনে আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ দূত হিসাবে দায়িত্ব পালন করেনI এর আগে তিনি সাবেক প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশের অধীনে জাতিসংঘে, ইরাক ও আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের দায়িত্ব পালন করেনI

আফগানিস্তানে জন্মগ্রহণকারী খলিলজাদ ২০১৮ সাল থেকে তালিবান ও আফগান সরকারের মধ্যে আলোচনা চালানোর ব্যাপারে তাঁর ভূমিকার জন্য সমালোচিত হয়েছেনI

খলিলজাদ দুটি পক্ষের ক্ষমতা ভাগাভাগি সরকার গঠনে মধ্যস্থতায় ব্যর্থ হন ,তবে তালিবান ও যুক্তরাষ্ট্র সরকারের মধ্যে ২০২০ সালে একটি চুক্তি অর্জনে সফল হয়েছিলেন, যার ফলে আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্র সেনাবাহিনীর প্রত্যাহার শুরু হয়I

এ বছর আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্র সৈন্য প্রত্যাহার শুরু হলে তালিবান বাহিনী দ্রুতই সমগ্র আফগানিস্তান জুড়ে শহর দখল করতে শুরু করে এবং আগস্টে যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত আফগান সরকারের পতন ঘটেI

যে গতিতে তালিবান আফগানিস্তান দখল করে তাতে যুক্তরাষ্ট্রের সেনা প্রত্যাহার কর্মসূচিতে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির সৃষ্টি করে এবং শত শত যুক্তরাষ্টের নাগরিক ও আফগানিস্তানের হাজার হাজার যে সব লোক যুক্তরাষ্ট্রের লড়াই প্রচেষ্টায় সহায়তা করেছিলেন, যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক তৎপরতার শেষ দিনগুলিতে দেশটি ত্যাগ করতে অস্থির হয়ে পড়েনI

XS
SM
MD
LG