অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প  যুক্তরাষ্ট্রে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করলেন


প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প দেশে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করলেন এর ফলে প্রেসিডেন্ট কংগ্রেসকে এড়িয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ নিশ্চিত করতে পারবেন। তবে ঐ ঘোষণার মধ্য দিয়ে তিনি আইনী চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে পারেন এবং নিশ্চিত ভাবে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের ক্ষমতা কতখানি হবে তা নির্ধারণ করতে সাহায্য করতে পারে।

প্রেসিডেন্ট তার ভাষণে তার প্রশাসনের সাফল্য, বৈদেশিক সম্পর্ক জাতীয় নিরাপত্তা এবং দেশের দক্ষিণাঞ্চলের সীমান্তে মানবিক সংকট মোকাবেলা সংক্রান্ত বক্তব্য রাখেন।

চীনের সংগে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য সম্পর্কের সাফল্যের কথা দিয়ে তিনি বক্তব্য শুরু করেন। সিরিয়া থকে আইসিসকে বিতাড়িত করা সাফল্যের কথা বলেন। তিনি বলেন উত্তর কোরিয়ার সংগে সম্পর্ক উন্নয়নে রাশিয়া, চীন যুক্তরাষ্ট্রকে সাহায্য করছে, এমাসের শেষে ভিয়েতনামে চেয়ারম্যান কিমের সংগে শীর্ষ বৈঠকের কথাও বলেন।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প পরিকল্পনা করছেন জরুরি অবস্থা ঘোষণা করার যাতে তিনি কংগ্রেসকে এড়িয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ নিশ্চিত করতে পারেন।

কেন্দ্রীয় সরকারের কর্মকাণ্ড আংশিক ভাবে আরেক দফায় যাতে বন্ধ হয়ে না যায় তা এড়াতেই বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি পরিষদ এবং সেনেটে সীমান্ত নিরাপত্তা বিলটি পাশ হয়। ট্রাম্প ঐ বিলে স্বাক্ষর দেওয়ার জন্য আজ শুক্রবার মধ্যরাত পর্যন্ত সময় পাচ্ছেন। তবে বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউজ থেকে বলা হয়েছে যে তিনি বিলটিতে স্বাক্ষর করবেন। প্রেসিডেন্ট কংগ্রেসের কাছে যে অর্থ চেয়ে ছিলেন তার চেয়ে অনেক কম--- ১৩০ কোটি ডলার তাকে দেওয়া হয়। যার মধ্যে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে ৯০ কিলোমিটার দেয়াল নির্মাণের অর্থ। তবে তিনি কংগ্রেসের কাছে ৩২২ কিলোমিটার পর্যন্ত দেওয়াল তৈরি জন্য ৫৭০ কোটি ডলার চেয়ে ছিলেন।

XS
SM
MD
LG