অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

কুর্দিদের উপর তুরস্কের আক্রমণ নিয়ে নিরাপত্তা পরিষদে আলোচনা হবে


সিরিয়ার উত্তর পূর্বাঞ্চলে তুরস্কের সামরিক অভিযান সম্পর্কে আলোচনার জন্য আজ জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ এক বৈঠকে মিলিত হচ্ছে। তুরস্ক এই অভিযানকে তাঁর কথায়, “ পরিমিত এবং দায়িত্বশীল” সন্ত্রাস বিরোধী অভিযান বলে উল্লেখ করেছে তবে ঐ অঞ্চলের প্রধান কৃর্দি যোদ্ধারা তাদের কথায় তাদের জনগণকে গণহত্যার হাত থেকে রক্ষার জন্য আবেদন জানিয়েছে।

তুরস্ক তার দীর্ঘ দিনের পরিকল্পনা মতো গতকাল থেকে এই তৎপরতা শুরু করেছে যার লক্ষ্য হচ্ছে কুর্দি বাহিনীকে উৎখাত করা । তুরস্কের মতে তারা সন্ত্রাসী তবে পশ্চিমি বিশ্বের অধিকাংশই তাদেরকে ইসলামিক স্টেট জঙ্গিদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে গুরুত্বপূর্ণ মিত্র হিসেবেই দেখছে। হোয়াইট হাউজের অবাক করে দেয়া বহু সমালোচিত এই ঘোষণা যে যুক্তরাষ্ট্রের বাহিনী ঐ এলাকা থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নিচ্ছে, তার কয়েক দিনের মধ্যেই তুরস্কের সামরিক বাহিনী এই অভিযান শুরু করে।

তুরস্কের বাহিনী প্রথমে বিমান আক্রমণ চালায় এবং তার পর সেখানে স্থলবাহিনী পাঠায়। তাদের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক এক বিবৃতিতে জানিয়েছে যে তাদের এই অভিযান সফল ভাবেই পরিচালিত হচ্ছে তবে বিস্তারিত আর কিছু জানায়নি।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেজেপ তাইয়েপ এরদোয়ান আজ সিরীয় কৃর্দিদের কথা উল্লেখ করে বলেন ১০৯ জন জন সন্ত্রাসীকে হত্যা করা হয়েছে।

ওদিকে কুর্দি নের্তত্বাধীন সিরিয়ান ডেমক্র্যাটিক ফোর্সেস বলছে যে তারা তাল হালাফ এলাকায় তুর্কী বাহিনীর এবং রাস আল আইন এলাকার দক্ষিণে ইসলামিক স্টেট যোদ্ধাদের হামলার মোকাবিলা করেছে।

জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকের প্রাক্কালে সংবাদ সংস্থা রয়টার, পরিষদকে পাঠানো, জাতিসংঘে তুরস্কের রাষ্ট্রদূতের একটি চিঠি উদ্ধৃত করে বলেছে যে তাদের এ্ই অভিযানের লক্ষ্য হচ্ছে কেবল মাত্র সন্ত্রাসী, তাদের গোপন আস্তানা, আশ্রয়স্থল, অস্ত্র মোতায়েনের স্থান, অস্ত্রবাহী যানবাহন এবং সাজসরঞ্জাম ।

প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প গতকালই এক বিবৃতিতে বলেছেন যুক্তরাষ্ট্র এই আক্রমণ অনুমোদন করে না এবং তুরস্কের কাছে পরিস্কার বলে দিয়েছে যে এই অভিযান খুবই খারাপ কথা।

XS
SM
MD
LG