অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

জলবায়ু চুক্তিতে মতানৈক্য, সন্ত্রাস দমনে ঐকমত্য: ট্রাম্প-ম্যাক্রঁ প্রসঙ্গে সুজা মাহমুদ


যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প ফ্রান্সে তাঁর তিরিশ ঘন্টার ব্যস্ত সফর সমাপ্ত করে এখন স্বদেশের পথে রয়েছেন। ফ্রান্সের সম্মানিত অতিথী হিসেবে তিনি সেখানকার বাস্তিল দিবস উদযাপনের উৎসবে যোগ দিয়েছেন। এ বছর এ দিনটির সঙ্গে প্রথম মহাযুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের যোগদানের সিদ্ধান্তের শততম বার্ষিকী উদযাপিত হলো। কিন্তু এই সব উৎসব উদযাপনের পাশাপাশি মি. ট্রাম্পের সঙ্গে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইম্যানুয়েল ম্যাক্রঁর বেশ কিছু আলাপও হয়েছে। সে বিষয় নিয়েই লন্ডনে রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও নিবন্ধকার জনাব সুজা মাহমুদের সঙ্গে কথা বলেছেন ভয়েস অফ আমেরিকার আনিস আহমেদ।

please wait

No media source currently available

0:00 0:04:57 0:00

সুজা মাহমুদ বলছিলেন যে, প্রধান যে মতানৈক্যের ব্যাপার রয়েছে ফ্রান্স ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে, সেটি প্যারিস জলবায়ু চুক্তি সংক্রান্ত। গত সপ্তায় সমাপ্ত জি-টুয়েন্টি বৈঠকে যু্ক্তরাষ্ট্র এই জলবায়ু চুক্তি থেকে বেরিয়ে আসার কথা আবারো বলায় বাকি ১৯ টি দেশই হতাশ হয়েছে। তবে ম্যাক্রোঁর সঙ্গে বৈঠকের পর, সাংবাদিকদের ট্রাম্প বলেছেন এ ব্যাপারে কিছু একটা করা হবে। তিনি বিস্তারিত কিছু বলেননি কিন্তু ২০২০ সাল নাগাদ এই চুক্তি থেকে চূড়ান্ত ভাবে বেরিয়ে আসার আগে, যুক্তরাষ্ট্র হয়তো তার মত পাল্টাতে পারে। তবে ম্যাক্রঁ ও ট্রাম্পের আরো কয়েকটি বিষয়, যেমন ব্রিটেনের ব্রেক্সিট এবং অভিবাসন সম্পর্কে যে ভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গি রয়েছে সে কথাও সুজা মাহমুদ উল্লেখ করেন।

জনাব মাহমুদ আরো বলেন যে, এই সব মতভেদ সত্ত্বেও সহিংস উগ্রবাদ দমন এবং সিরিয়ায় রাশিয়ার সঙ্গে সহযোগি ভূমিকা পালনে ট্রাম্প, ফ্রান্সের ভূমিকা প্রত্যাশা করে। বস্তুত সন্ত্রাস দমনের ক্ষেত্রে ফ্রান্স হচ্ছে যুক্তরাষ্টের সবচেয়ে বড় সহযোগী দেশ।

XS
SM
MD
LG