অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

পশ্চিমবঙ্গে কোভিড সংক্রান্ত বিধিনিষেধ আরও ১৫ দিনের জন্য বাড়ানো হলো


পশ্চিমবঙ্গের হাওড়া জেলার উত্তর বাটোরা দ্বীপে স্বাস্থ্যকর্মীরা সেখানকার মানুষদের সিরাম ইন্সিটিউটের তৈরি কোভিশিল্ড টিকা দিতে যাচ্ছেন। ২১ জুন ২০২১।

কোভিড পরিস্থিতির কারণে কিছু কিছু ক্ষেত্রে দেওয়া ছাড় বজায় রেখেই পশ্চিমবঙ্গে বিধিনিষেধের মেয়াদ কাল থেকে আরও পনেরো দিন বাড়ানো হলো। করোনা আবহে গত বছর দেড়েক ধরেই রাজ্যে লকডাউনের মেয়াদ দফায় দফায় বাড়ানো হচ্ছে। সেই সঙ্গে পরিস্থিতির যখন যেমন উন্নতি হচ্ছে, সেই হিসেবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে ছাড়ও দেওয়া হচ্ছে। এই মাসের প্রথমে যে বিধিনিষেধ কার্যকর হয়েছিল, তার মেয়াদ ফুরিয়েছে আজ বুধবার। আজকেই রাজ্য সরকার এক বিবৃতিতে চলতি বিধিনিষেধের মেয়াদ ৩০শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাড়ানোর কথা জানিয়েছে।

বলা হয়েছে, যে সব ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হয়েছে, তা তুলে নেওয়া হচ্ছে না ঠিকই, তবে কোভিড সংক্রান্ত স্বাস্থ্যবিধি পুরোপুরি মানতে হবে। প্রত্যেকের মুখে মাস্ক পরা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, ইত্যাদি মেনে চলতে হবে। সরকারি ও বেসরকারি অফিসগুলোতে ৫০% কর্মী নিয়ে কাজ চালানোর যে কথা বলা হয়েছিল তাই চালু থাকবে। তবে যতটা সম্ভব বাড়ি থেকে কাজ করার নিয়ম চালু রাখতে বলা হয়েছে। লোকাল ট্রেন এখনও চলবে না। রাত ১১টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত যে কঠোর লকডাউন বিধি জারি রয়েছে, তা মানতে হবে। রাতে ওই সময় অকারণ বাইরে বেরোনো যাবে না। শুধুমাত্র স্বাস্থ্য পরিষেবা ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত ব্যক্তিরা কাজের জন্যই বেরোতে পারেন। অত্যাবশ্যক পণ্য পরিবহন, বিশেষ করে ফলমূল, শাকসবজি, টাটকা খাদ্যদ্রব্য, ইত্যাদিতেও ছাড় দেওয়া হয়েছে।

এই নিষেধাজ্ঞা ভাঙলে ভারতীয় দণ্ডবিধির ২০০৫ সালে প্রণীত বিপর্যয় মোকাবিলা আইনের আওতায় শাস্তি হবে।

যদিও সাধারণভাবে দেখা যাচ্ছে, বহু লোকই মাস্ক ঠিকভাবে না পরে এবং সামাজিক দূরত্ব বিধি পালন না করে চলাফেরা করছেন। তাঁদের বারণ করা বা শাস্তি দেওয়ার মতো পরিকাঠামো যে সরকারের নেই, তাও বোঝা যাচ্ছে। সচেতনতার অভাব তো আছেই।

XS
SM
MD
LG