অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ভারতের চিকিৎসা খরচ অস্বাভাবিক বেড়ে যাওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে সুপ্রীমকোর্ট


ভারতের শীর্ষ আদালত সুপ্রীমকোর্ট দেশের মানুষের চিকিৎসা ব্যবস্থার খরচ অস্বাভাবিক বেড়ে যাওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। এব্যাপারে সরকারি কিছু করুক বলে জানিয়েছে শীর্ষ আদালত। সম্প্রতি ন্যাশনাল ফার্মাসিউটিক্যাল প্রাইসিং অথরিটি (এন-পি-পি-এ) জানায়, দিল্লি ও ন্যাশনাল ক্যাপিটাল রিজিয়নের (এন-সি-আর) চারটি বেসরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফে রোগীদের পরিবার বর্গের হাতে চিকিৎসা সংক্রান্ত যে বিপুল অঙ্কের টাকার বিল ধরানো হয়েছে, তার একটা বড় অংশই নন-সিডিউলড ড্রাগস ও ডায়াগনস্টিক পরিষেবার খরচ বাবদ। এন-পি-পি-এ-র বিশ্লেষণ অনুযায়ী, প্রাণ সংশয় হতে পারে, এমন লো ব্লাড প্রেসারের চিকিৎসার মতো জরুরি ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় ওষুধের ওপর মার্জিন হয়েছে একহাজার একশো বিরানব্বই শতাংশ। ওষুধের দাম নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থাটি সম্প্রতি বলেছে, অ্যাড্রেনর দুই এমএল ইঞ্জেকশনের এমআরপি একশো আটানব্বই দশমিক নয় পাঁচ টাকা। হাসপাতাল কিনছে চোদ্দো দশমিক সাত শূন্য টাকায়। কিন্তু রোগীদের কাছ থেকে নেওয়া হচ্ছে পাঁচহাজার তিনশো আঠেরো দশমিক ছয় শূন্য টাকা, যার মধ্যে কর ধরা রয়েছে।এরই পরিপ্রেক্ষিতে সুপ্রীম কোর্টের বিচারপতি মদন বি লোকুর, বিচারপতি ক্যুরিয়েন জোসেফ ও বিচারপতি দীপক গুপ্তাকে নিয়ে গঠিত বেঞ্চ জানিয়েছে, ভারতে মেডিকেল চিকিৎসার খরচ খুবই চড়া। বিপুল খরচের জন্য লোকে চিকিৎসা করাতে পারছে না। এবং এই সময় সরকারের কিছু অন্তত করা উচিত।

please wait

No media source currently available

0:00 0:00:41 0:00


XS
SM
MD
LG