অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সোমালিয়ার নিরাপত্তা সংস্থার কর্মী হত্যার দায় অস্বীকার করেছে আল-শাবাব


ফাইল ফটোঃ ২৩ আগস্ট, ২০১০ সোমালিয়ার কট্টর পন্থী ইসলামপন্থী আল শাবাব দল ছবিঃ এপি

সোমালি সন্ত্রাসীদল আল-শাবাব জাতীয় গোয়েন্দা ও নিরাপত্তা সংস্থার এক কর্মীকে দুই মাস আগে অপহরণ করে নিয়ে যায় এবং তাকে হত্যা করার অভিযোগ তারা দৃঢ়ভাবে অস্বীকার করেছে। নিহত কর্মীর বাবা-মা যুক্তি দেন ঘটনাটির জন্য সংস্থাটিও দায়ী ছিল।

আল-শাবাবপন্থী ওয়েবসাইটে শুক্রবার প্রকাশিত এক বিবৃতিতে এই দলের একজন মুখপাত্র বলেছেন, ২৪ বছর বয়সী ইকরান তাহলিল ফারাহকে হত্যা করার যে অভিযোগ করা হচ্ছে সে সম্পর্কে তারা কিছুই জানে না। ফারাহ এনআইসিএ-র সাইবার নিরাপত্তা বিভাগে কাজ করতেন।

তাকে ২৬শে জুন মোগাদেশুর আব্দুলআজিজ জেলায় তার বাড়ির কাছে অপহরণ করা হয় এবং তার বাড়ি সংস্থাটির সদর দপ্তরের কাছাকাছি অবস্থিত।

নিরাপত্তা সংস্থা বৃহস্পতিবার তাদের ওয়েবসাইটে একটি সংক্ষিপ্ত বিবৃতি পোস্ট করে বলেছে যে তাদের তদন্তকারীরা নিশ্চিত যে অপহরণকারীরা তরুণীকে আল-সাবাব জঙ্গিদের কাছে হস্তান্তর করেছে এবং পরে তারা তাকে হত্যা করে।তবে সংস্থাটি ইকরানকে কখন বা কোথা থেকে অপহরণ করা হয়েছিল সে সম্পর্কে বিস্তারিত কিছু প্রকাশ করেনি।

আল-শাবাব স্বীকার করেছে যে তারা গোয়েন্দা কর্মকর্তাদের লক্ষ্য করে হামলা চালিয়েছে এবং ঐসব হামলার দায়ও স্বীকার করেছে তবে তারা জানিয়েছে যে ইকরানের নিখোঁজ হওয়া এবং মৃত্যুর সঙ্গে তাদের কোন সম্পৃক্ততা নেই।

ইকরানের মা কয়ালি মোহামুদ গুহাদ বলেন তিনি মনে করেছিলেন যে তার মেয়ে হয়ত জীবিত আছে এবং একটি গোপন জায়গায় আটক রাখা হয়েছে।

এনআইসিএ-র সাবেক মহা পরিচালক আব্দুল্লাহী আলি সানবালোলশে ভিওএ-এর সোমালি বিভাগকে জুলাই মাসে বলেন “কিছু লোক” তাকে জানিয়ে ছিলেন যে ইকরানের কাছে একটি কার্যক্রমের রেকর্ড ছিল যার অধীনে সোমালি সামরিক বাহিনী নিযুক্ত ব্যক্তিদের প্রশিক্ষণের জন্য গোপনে ইরিত্রিয়াতে পাঠিয়ে দেয়।

সানবালোলশে বলেন, ইকরানের কাছে "অন্যান্য গোপন তথ্যও থাকতে পারে যার কারণে সে হয়তো তাদের আক্রমণের লক্ষ্যে পরিণত হন।" ২০১৭ সালে তিনি ইকরানকে চাকরিতে নিয়োগ করেছিলেন।

XS
SM
MD
LG