অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

রাশিয়া-ইউক্রেন উত্তেজনা বৃদ্ধির প্রেক্ষাপটে ইউরোপকে গ্যাস সরবরাহ করার প্রস্তাব দিল অস্ট্রেলিয়া


২০১২ সালের এই ছবিতে দেখা যাচ্ছে পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ার কারাথা গ্যাস প্লান্টের টার্মিনালে তরল গ্যাসের ট্যাংকার। (ছবি- এএফপি)

যদি রাশিয়া ইউরোপে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করে দেয়, তাহলে অস্ট্রেলিয়া ইউরোপে বাড়তি তরল গ্যাস সরবরাহ করার প্রস্তাব করবে বলে জানিয়েছে। ইউক্রেন ও রাশিয়ার মধ্যকার উত্তেজনা বৃদ্ধি পাওয়ায় মস্কো ইউরোপে গ্যাস সরবরাহ হ্রাস বা বন্ধ করে দিতে পারে এমন আশঙ্কা বাড়ছে।

কোভিড-১৯ এর বিধিনিষেধ শিথিল হওয়া্র পর ইউরোপীয় ইউনিয়নে ইতোমধ্যেই গ্যাসের ঘাটতি তৈরি হয়েছে। সরবরাহকৃত গ্যাসের এক-তৃতীয়াংশের জন্য ইইউ রাশিয়ার ওপর নির্ভরশীল। তাই রাশিয়া ইউক্রেন আক্রমণের আশঙ্কা বৃদ্ধিই পেলে গ্যাসের বিকল্প উৎসের প্রয়োজন হতে পারে। এদিকে পৃথিবীর অন্যতম প্রধান প্রাকৃতিক তরল গ্যাস বা এলএনজি উৎপাদনকারী অস্ট্রেলিয়া ইউরোপিয়ান দেশগুলোতে গ্যাস রপ্তানির জন্য প্রস্তুত।

বাণিজ্য মন্ত্রী ড্যান তেহান মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে জানান, অস্ট্রেলিয়া “বর্তমান চ্যালেঞ্জিং ও জটিল, ভূ-কৌশলগত অবস্থায় আমাদের বন্ধু এবং মিত্রদের সমর্থন করতে প্রস্তুত”।

ইউক্রেন ও পূর্ব ইউরোপের দেশগুলোর মধ্য দিয়ে যাওয়া পাইপ লাইনের মাধ্যমে রাশিয়া ইউরোপে গ্যাস রপ্তানি করে। কিন্তু ইউক্রেনের ব্যবস্থা অত্যন্ত জীর্ণ এবং প্রতিবেশী দেশটির বিরুদ্ধে গ্যাস চুরির অভিযোগ করে মস্কো। বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, ইউক্রেনের সাথে এই উত্তেজনার সুযোগ নিয়ে রাশিয়া ইউক্রেন ও পোল্যান্ডকে বাইপাস করে জার্মানির ওপর দিয়ে নতুন পাইপ লাইন স্থাপনের পরিকল্পনা কার্যকর করতে পারে।

ইউক্রেন সীমান্তে রাশিয়ার সেনা সমাবেশ এবং আক্রমণের আশঙ্কা বেড়ে যাওয়ার অস্ট্রেলিয়ার সরকার ইতোমধ্যে ইউক্রেনে অবস্থানরত প্রায় ১৪০০ অস্ট্রেলীয়কে ইউক্রেন ত্যাগ করার নির্দেশ দিয়েছে। মঙ্গলবার পররাষ্ট্র বিষয়ক মন্ত্রী মেরিস পেইন বলেন, ইউক্রেন ত্যাগের নির্দেশ “একটি সতর্ক এবং বিচক্ষণ পদক্ষেপ কারণ নিরাপত্তা পরিস্থিতি অনিশ্চিৎ।”

XS
SM
MD
LG