অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইয়েমেনের কারাগারে সৌদি বিমান হামলার স্বাধীন ও স্বচ্ছ তদন্ত চায় জাতিসংঘ


বিমান হামলার পর ওই কারাগারের দৃশ্য। ২২ জানুয়ারী, ২০২২।

জেনেভা — ইয়েমেনে হুথি বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত একটি কারাগারে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের সাম্প্রতিক বিমান হামলার তদন্ত স্বাধীন ও স্বচ্ছ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ।

গত ২১শে জানুয়ারী ইয়েমেনের উত্তরাঞ্চলীয় শহর সা’দাতে হুথি বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত ওই কারাগারে পর পর তিনটি বিমান হামলা করেছে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট, যা ইয়েমেনে চলমান প্রায় সাত বছরের গৃহযুদ্ধে সবচেয়ে মারাত্মক হামলাগুলোর একটি।

এতে ৯১ জন বন্দী নিহত এবং অপর ২৩৬ জন আহত হয়েছে বলে সাহায্য সংস্থাগুলির প্রাথমিক অনুসন্ধানে জানা গেছে। জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক মুখপাত্র রুপার্ট কলভিল বলেছেন, তার সহকর্মীরা এই সপ্তাহে সা'দাতে একটি আন্তঃসংস্থা মিশনের হয়ে বেসামরিক নাগরিক হতাহতের সংখ্যা যাচাই করার জন্য কাজ করে যাচ্ছে।

কলভিল বলেন, “তারা যে তথ্য সংগ্রহ করেছে, তাতে ওই কারাগারের অভ্যন্তরে একটি বিশৃঙ্খল এবং ভয়াবহ চিত্র দেখা গেছে। ধারণা করা হচ্ছে, সেখানে প্রায় ১,৩০০ বিচারাধীন বন্দী এবং ৭০০ অভিবাসী ওই বিমান হামলার শিকার হয়েছিল।

হামলায় গুরুতর আহতদের সা’দা ‘র হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। কলভিল বলেন, জরুরি চিকিৎসার প্রয়োজন, এমন রোগীদের সামলাতে চিকিৎসা কর্মীরা হিমশিম খাচ্ছেন।

সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট বলছে, তারা ওই হামলার তদন্ত শুরু করেছে। কলভিল বলেন, এই জাতীয় তদন্ত অবশ্যই স্বচ্ছ, স্বাধীন এবং নিরপেক্ষভাবে আন্তর্জাতিক মানের সাথে সঙ্গতিপূর্ণভাবে পরিচালিত হওয়া উচিত।

অধিকতর বিশ্বাসযোগ্য হওয়ার জন্য তিনি বলেন, কেন কারাগারে হামলা করা হয়েছিল, তা তদন্তে অবশ্যই উল্লেখ করতে হবে। সেই সাথে অবশ্যই আন্তর্জাতিক মানবিক আইন লঙ্ঘনের জন্য প্রত্যেকের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে, এবং ভবিষ্যতে এই ধরনের ঘটনা প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপগুলি চিহ্নিত করতে হবে।

কলভিল বলেন , “ সেখানে সম্প্রতি , এই সপ্তাহেই আমাদের টিমের পরিদর্শনে আমরা এমন কোন চিহ্ন পাইনি যে এ্ জায়গাটি যা এক সময়ে ব্যারাক ছিল সেখানে কোন রকম সামরিক কার্যক্রম চলছে। আর সেই প্রেক্ষাপটে আমরা জোটকে বলেছি আমাদের সঙ্গে তথ্য ভাগাভাগি করতে”।

জাতিসংঘের তথ্য অনুযায়ী, গত বছর সৌদি সরকার সমর্থিত, সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট ইয়েমেন জুড়ে প্রতি মাসে গড়ে অন্তত ৬০০টি করে বিমান হামলা করেছে। অপরদিকে, ২০২১ সালে ইরান-সমর্থিত হুথি বিদ্রোহীরা সৌদি ভূখণ্ডে মাত্র ৩৪০টি ক্ষেপণাস্ত্র এবং ড্রোন হামলা চালিয়েছে।

ক্রমবর্ধমান সংঘাতের ফলে ইয়েমেনে এ পর্যন্ত উল্লেখযোগ্য মানুষকে প্রাণ বিসর্জন দিতে হয়েছে। জাতিসংঘের হিসাব অনুযায়ী, দেশটিতে প্রায় ৩,৭৭,০০০ এরও বেশি মানুষ মারা গেছে, এর মধ্যে ৬০% মানুষ মারা গেছে অসুখ-বিসুখ এবং ক্ষুধার মতো পরোক্ষ কারণে।

XS
SM
MD
LG