অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বেইজিংয়ে আরও কিছু আবাসিক এলাকায় লকডাউন; ১২ জন করোনা রোগী সনাক্ত


বেইজিং এর শিচেং জেলার একটি কোভিড-১৯ পরীক্ষা কেন্দ্রে একজনের গলার ভেতর থেকে সোয়াব নেয়া হচ্ছে। জানুয়ারি ২৭, ২০২২। (ছবি- অ্যান্ডি ওং/ এপি)

বেইজিংয়ের কর্মকর্তারা রবিবার জানিয়েছেন যে সেখানে কোভিড-১৯ এর দুইজন রোগী সনাক্ত হওয়ার পর, তারা শহরটির উত্তরের ডিস্ট্রিক্ট-এর কয়েকটি আবাসিক এলাকার সাথে বাইরের যাতায়াত সম্পূর্ণভাবে বিচ্ছিন্ন করে রেখেছেন।

চাওইয়াং ডিস্ট্রিক্ট এর আনজেনলি মহল্লার বাসিন্দাদের শনিবার যাতায়াত বিচ্ছিন্ন করা হয় এবং তাদের নিজেদের প্রাঙ্গন ছেড়ে বের হতে দেওয়া হবে না।

শুক্রবার শুরু হতে যাওয়া অলিম্পিক গেমসের জন্য প্রস্তুতি নিতে থাকা বেইজিং উচ্চ সতর্কাবস্থায় রয়েছে।

যদিও আশপাশের দেশের তুলনায় চীনে সংক্রমণের হার কম, তবুও দেশটি তাদের “জিরো-টলারেন্স” নীতি আরও কড়াকড়িভাবে আরোপ শুরু করেছে। এই নীতির আওতায় কোন সংক্রমিত ব্যক্তি সনাক্ত হওয়ার সাথে সাথেই সংক্রমণের ধারাটি রোধ করে দেওয়া হয়।

একইসাথে শহরটির ১৯টি স্থানে পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হচ্ছে যাতে সেখানকার বাসিন্দাদের শুক্রবার পর্যন্ত প্রতিদিন পরীক্ষা করানো যায়। রাষ্ট্রীয় সমর্থনপুষ্ট বেইজিং নিউজ-এর তথ্যমতে, মহামারী বিষয়ক একটি ব্রিফিং এ এমনটাই জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

বেইজিং সেন্টার ফর ডিজিজ প্রিভেনশন অ্যান্ড কন্ট্রোল-এর সহকারী প্রধান, প্যাং শিংহুয়ো জানান যে, শনিবার বিকাল ৪টা থেকে রবিবার বিকাল ৪টার মধ্যে, চীনের রাজধানীতে মোট ১২ জন কোভিড-১৯ রোগী সনাক্ত করা হয়েছে। সনাক্তদের মধ্যে সকলেই তার আগে থেকেই কোন না কোন কোভিড নিয়ন্ত্রক পদক্ষেপের আওতায় ছিলেন।

ফেংটাই ডিস্ট্রিক্ট-এর লক্ষ লক্ষ মানুষকে গত সপ্তাহে কয়েক দফায় পরীক্ষা করানো হয়। সেখানে কয়েকটি আবাসিক এলাকা লকডাউন করা হয়।

XS
SM
MD
LG