অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ঢাকা আবারও বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত শহরের তালিকায়


বায়ু দূষণ থেকে বাঁচতে ঢাকার রাস্তায় চলাচলের সময় মুখে কাপড় দিয়ে রেখেছেন পথচারীরা। (ছবি- ইউএনবি)
বায়ু দূষণ থেকে বাঁচতে ঢাকার রাস্তায় চলাচলের সময় মুখে কাপড় দিয়ে রেখেছেন পথচারীরা। (ছবি- ইউএনবি)

বাংলাদেশের ঘনবসতিপূর্ণ রাজধানী ঢাকা আবারও বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত শহররের তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে।

সোমবার (৩১ জানুয়ারি) সকাল ৯টায় ঢাকার এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স (একিউআই) ২৮৮ রেকর্ড করা হয়েছে। এই ইনডেক্স বাতাসের মানকে “খুব অস্বাস্থ্যকর” বলে নির্দেশ করে।

পাকিস্তানের লাহোর ও আফগানিস্তানের কাবুল যথাক্রমে ২২১ ও ১৯০ এর স্কোর নিয়ে তালিকায় দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে রয়েছে।

একিউআই স্কোর ২০১ থেকে ৩০০ হলে “খারাপ” বলা হয়। ৩০১ থেকে ৪০০ স্কোর হলে “ঝুঁকিপূর্ণ” বলে বিবেচিত হয়। যা বাসিন্দাদের জন্য গুরুতর স্বাস্থ্য ঝুঁকি তৈরি করে।

প্রতিদিনের বাতাসের মান নিয়ে তৈরি করা একিউআই সূচক একটি নির্দিষ্ট শহরের বাতাস কতটুকু নির্মল বা দূষিত সে সম্পর্কে মানুষকে তথ্য দেয় এবং তাদের জন্য কোন ধরনের স্বাস্থ্য ঝুঁকি তৈরি হতে পারে তা জানায়।

বাংলাদেশে একিউআই নির্ধারণ করা হয় দূষণের পাঁচটি ধরনকে ভিত্তি করে। বস্তুকণা (পিএম১০ ও পিএম২.৫), এনও২, সিও, এসও২ এবং ওজোন (ও৩)।

ঢাকা দীর্ঘদিন ধরে বায়ু দূষণে ভুগছে। এর বাতাসের গুণমান সাধারণত শীতকালে অস্বাস্থ্যকর হয়ে যায় এবং বর্ষাকালে কিছুটা উন্নত হয়।

২০১৯ সালের মার্চ মাসে পরিবেশ অধিদপ্তর ও বিশ্বব্যাংকের একটি প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, ঢাকার বায়ু দূষণের তিনটি প্রধান উৎস হলো, ইটভাটা, যানবাহনের ধোঁয়া ও নির্মাণ সাইটের ধুলো।

জাতিসংঘের তথ্যমতে, বিশ্বব্যাপী প্রতি ১০ জনের মধ্যে ৯ জন দূষিত বাতাসে শ্বাস নেন এবং বায়ু দূষণের কারণে প্রতি বছর প্রধানত নিম্ন ও মধ্য আয়ের দেশে আনুমানিক ৭০ লাখ মানুষের অকাল মৃত্যু ঘটে।

XS
SM
MD
LG