অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

জাতিসংঘ ও অধিকারবাদী গ্ৰুপগুলো ২জন আফগান সাংবাদিকের মুক্তি দাবি করেছে 


ফাইল ছবি, আফগান মহিলা সাংবাদিক, ৪ঠা জানুয়ারী,ছবি/ তানজিল রহমান/ভিওএ

তালিবান গোষ্ঠী আফগানিস্তানে স্থানীয় সংবাদ চ্যানেলে কর্মরত দুজন সাংবাদিককে গ্রেফতার করেছে। তাদের গ্রেফতারকে ইসলামপন্থি এই গোষ্ঠীটির আগস্ট মাসে ক্ষমতা দখলের পর ভিন্ন মতাবলম্বীদের বিরুদ্ধে হামলা বৃদ্ধি বলে দেখা হচ্ছে।

রাজধানী কাবুলে ২জন নারী সাংবাদিক নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার কয়েকদিন পরে এমন অভিযোগ করা হয় যে তালিবান তাদেরকে আটক করেছে তারপরেই তাদের গ্রেফতার করা হয়।

স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতার সমর্থকরা অভিযোগ করেন যে আরিয়ানা টিভি সাংবাদিক, ওয়ারিস হাসরাত এবং আসলাম হিজাবকে কাবুলে মধ্যাহ্ন ভোজে যাওয়ার সময় সোমবার বিকেলে তালিবান বাহিনী তুলে নিয়ে যায় । সংবাদপত্রের স্বাধীনতার জন্য কাজ করছে এমন একটি স্বতন্ত্র আফগান গ্ৰুপ, ফ্রি স্পিচ হাব এক বিবৃতিতে জানায় “এসব সাংবাদিকের গ্রেফতারের কারণ এখনো অজানা”।

আফগানিস্তানে জাতিসংঘ সহায়তা মিশন,(ইউএনএএমএ) এ সব নারীকে আটক কেন করা হয়েছে এবং নিখোঁজ নারীরা কোথায় আছেন তালিবানের প্রতি তা জানানোর দাবি জানান ।

তালিবান কর্মকর্তারা এখনো এই ঘটনা সম্পর্কে কোনো মন্তব্য করেননি। আরিয়ানা টিভি কর্মকর্তারা জানান, "তালিবান তাদেরকে পূর্ণাঙ্গ তদন্তের আশ্বাস দিয়েছে"। অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল মঙ্গলবার দাবি জানায় যে এই ইসলামপন্থি শাসকদের “বিনা শর্তে ও অতি সত্বর” এই ২জন নারী সাংবাদিককে মুক্তি দিতে হবে।

তালিবান কর্তৃপক্ষ এই নারীদের অবস্থান সম্পর্কে জানার কথা অস্বীকার করেছে এবং জানায় যে এই ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র ও অন্যান্য কয়েকটি দেশ প্রকৃত সরকার হিসাবে তালিবানকে এখনো স্বীকৃতি দেয় নি।

আন্তর্জাতিক সমাজ তালিবানের দেয়া প্রতিশ্রুতি রাখতে এই ইসলামপন্থি দলটির ওপর চাপ দিয়ে যাচ্ছে। তারা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলো যে তারা বিশেষত নারীসহ সকলের মানবাধিকারের প্রতি শ্রদ্ধা জানাবে এবং বিস্তৃত বৃহত্তর সরকারের ভিত্তিতে দেশটি পরিচালনা করবে

XS
SM
MD
LG