অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বেইজিং অলিম্পিকের প্রাক্কালে যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে সম্মিলিত ঘোষণা শি ও পুতিনের


চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং এবং রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে চীনের বেইজিং এ একটি আলোচনার আগে ছবি তোলার প্রস্তুতি নিতে দেখা যাচ্ছে। ৪ই ফেব্রুয়ারী, ২০২২, ছবি- এপি

যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাব মোকাবেলা করতে, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও চীনের নেতা শি জিনপিং আরও ঘনিষ্ঠ সহযোগিতার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন। ২০২২ বেইজিং অলিম্পিক-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আগে শুক্রবার এক বৈঠকে এমন সিদ্ধান্ত নেন এই দুই নেতা।

যুক্তরাষ্ট্রের সাথে দু’টি দেশেরই সম্পর্কের ক্রমেই অবনতির মাঝে পুতিন-শি বৈঠকটি, দেশ দুইটির মধ্যকার সম্পর্ক আরও ঘনিষ্ঠ হওয়ার সর্বসাম্প্রতিক প্রমাণ। বেইজিং এর তথ্য অনুযায়ী বৈঠকটি দুই নেতার মধ্যে হওয়া ৩৮তম বৈঠক।

বৈঠকটি এমন এক ক্রান্তিলগ্নে অনুষ্ঠিত হল, যখন কিনা রাশিয়া ইউক্রেনের সাথে তাদের সীমান্তে ১,০০,০০০ এরও বেশি সৈন্য সমাবেশ করেছে এবং পশ্চিমা সামরিক জোট নেটো-কে বিভিন্ন বিষয়ে ছাড় প্রদানে চাপ দিচ্ছে। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সংঘর্ষের শঙ্কা বৃদ্ধি পেয়েছে।

ইউক্রেন বিষয়ে রাশিয়াকে সমর্থন করতে চীন কতদূর এগোবে সে বিষয়টি পুরোপুরি পরিষ্কার নয়। বিশেষত যদি বেইজিং অলিম্পিক চলাকালীন পরিস্থিতি একটি সংঘাতের দিকে মোড় নেয় তাহলে !

পুতিন-শি বৈঠকের পর দেওয়া এক যৌথ বিবৃতিতে ইউক্রেনের বিষয়টি নির্দিষ্ট করে উল্লেখ করা হয়নি। তবে, তাতে বলা হয় যে উভয় দেশই নেটোর পরিধি আরও সম্প্রসারণের বিরুদ্ধে। তারা এই সামরিক জোটটিকে সেটির “স্নায়ুযুদ্ধ চলাকালীন” পন্থা থেকে সরে আসার আহ্বান জানিয়েছে।

দীর্ঘ ও বিস্তৃত পরিসরের এই বিবৃতিটিতে, রাশিয়াও তাইওয়ান বিষয়ে চীনের প্রতি তাদের সমর্থন পুনর্ব্যক্ত করে। সেটিতে বলা হয় যে দ্বীপটি “চীনের একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ” এবং রাশিয়া “যে কোন রূপেই” তাইওয়ানের স্বাধীনতার বিপক্ষে।

চীনের কর্মকর্তারা ইতোমধ্যেই ওয়াশিংটনকে সতর্ক করেছেন যে, তাইওয়ানের প্রতি তাদের সমর্থন যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে যুদ্ধ বাধিয়ে দিতে পারে। তাইওয়ান একটি স্বাধীনভাবে শাসিত দ্বীপ যেটিকে বেইজিং নিজ ভূখন্ড বলে দাবি করে।

বিবৃতিটিতে পুতিন ও শি “বহিঃশক্তি কর্তৃক তাদের পার্শ্ববর্তী অভিন্ন এলাকাগুলোতে নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা দূর্বল করার প্রচেষ্টার” প্রতি নিন্দা জানান। যদিও বিবৃতিটিতে অঞ্চলগুলোর নাম নির্দিষ্ট করে বলা হয়নি, তবুও তাতে এটি বলা হয় যে দুই পক্ষই ঐ এলাকাগুলোতে “সহযোগিতা বৃদ্ধির” বিষয়ে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

XS
SM
MD
LG