অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন গঠনে বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বে ৬ সদস্যের সার্চ কমিটি গঠন


বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন লোগো

বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের (ইসি) প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) ও অন্যান্য নির্বাচন কমিশনার (ইসি) নিয়োগে যোগ্য ব্যক্তিদের নাম সুপারিশ করতে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি ওবায়দুল হাসানকে প্রধান (সভাপতি) করে ছয় সদস্যের সার্চ কমিটি গঠন করা হয়েছে।

শনিবার (৫ ফেব্রুয়ারি) এ বিষয়ে এক গেজেট জারি করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

সার্চ কমিটির অন্য পাঁচ সদস্য হলেন-হাইকোর্টের বিচারপতি এস এম কুদ্দুস জামান, মহাহিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রক মো. মুসলিম চৌধুরী (পদাধিকার বলে), সরকারি কর্ম কমিশনের চেয়ারম্যান মো. সোহরাব হোসাইন (পদাধিকার বলে) এবং এবং রাষ্ট্রপতির মনোনীত দুজন বিশিষ্ট নাগরিক সাবেক নির্বাচন কমিশনার মুহাম্মদ ছহুল হোসাইন ও কথাসাহিত্যিক অধ্যাপক আনোয়ারা সৈয়দ হক।

সদ্য পাস হওয়া “প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও অন্যান্য নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ আইন, ২০২২” মোতাবেক এ সার্চ কমিটিকে দায়িত্ব ও কার্যবিধি সম্পন্ন করতে গেজেটে বলা হয়েছে।

এ ছাড়া কমিটিকে সাচিবিক সহায়তা দিতে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগকে বলা হয়েছে।

ইসি গঠনে সদ্য প্রণীত আইনে বলা হয়েছে, অনুসন্ধান কমিটি সিইসি ও অন্যান্য ইসি প্রার্থীদের নাম রাষ্ট্রপতির কাছে সুপারিশ করবে। অনুসন্ধান কমিটি গঠনের ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে রাষ্ট্রপতির কাছে যোগ্য ব্যক্তিদের নাম সুপারিশ করতে হবে কমিটিকে।

অনুসন্ধান কমিটি সিইসি ও ইসিদের প্রতি পদের জন্য দুজন করে ১০ জনের নাম প্রস্তাব করবে। এ ১০ জনের মধ্য থেকে সিইসিসহ পাঁচজনকে দিয়ে ইসি গঠন করবেন রাষ্ট্রপতি।

সিইসি কে এম নুরুল হুদার নেতৃত্বাধীন বর্তমান নির্বাচন কমিশনের মেয়াদ চলতি মাসেই শেষ হচ্ছে।

সংবিধানে আইনের মাধ্যমে সিইসি ও অন্য ইসি নিয়োগের মাধ্যমে নির্বাচন কমিশন গঠনের কথা বলা রয়েছে। তবে স্বাধীনতার পর এবারই প্রথমবারের মতো একটি আইনের মাধ্যমে নির্বাচন কমিশন গঠিত হচ্ছে।

XS
SM
MD
LG