অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

মালয়েশিয়ায় জোরপূর্বক শ্রমের অভিযোগে দেশটির ওপর যুক্তরাষ্ট্রের আমদানি নিষেধাজ্ঞা


একজন কর্মী মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরের উপকণ্ঠে শাহ আলমের টপ গ্লাভ ফ্যাক্টরিতে ডিসপোজেবল গ্লাভস পরীক্ষা করে দেখছেন।

বিশ্বের সিংহভাগ রাবার গ্লাভস ও পাম তেল উৎপাদনকারী দেশ মালয়েশিয়া। এসবের উৎপাদনে অভিবাসী শ্রমিকদের ব্যাপক অপব্যবহারের কারণে যুক্তরাষ্ট্র মালয়েশিয়া থেকে আমদানির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। দেশটির সরকার ও ব্যবসায়ী নেতারা জানিয়েছে,তারা জোরপূর্বক শ্রম বন্ধ করার উদ্যোগ নিচ্ছেন।

যদিও শ্রম আইনজীবী ও বিশ্লেষকেরা বলছেন, যথাযথ পদক্ষেপ এখনো নেয়া হয়নি।

মালয়েশিয়া বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় মেডিকেল রাবার গ্লাভস সরবরাহকারী এবং ইন্দোনেশিয়ার পরে পাম তেলের দ্বিতীয় বৃহত্তম উৎপাদক। কম বেতন, অতিরিক্ত কর্মঘন্টা ও শারীরিক চাপের কারণে বেশিরভাগ মালয়েশিয়ান এই দুই শিল্পের চাকরিতে অনাগ্রহী বলে বিদেশী শ্রমিক দিয়ে সেই শূন্যস্থান পূরণ করা হয়।

ইউএস কাস্টমস এন্ড বর্ডার প্রোটেকশন গত আড়াই বছরে মালয়েশিয়ার আটটি নেতৃস্থানীয় গ্লাভস প্রস্তুতকারক ও পাম তেল উৎপাদকের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। অত্যধিক ওভারটাইম, শ্রমের অপব্যবহার ও মজুরি আটকে রাখার মতো অভিযোগে এ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়।

এর মধ্যে চারটির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয় অক্টোবর মাসে। তথাকথিত উইথহোল্ড রিলিজ অর্ডারগুলির মধ্যে ছয়টি এখনও সক্রিয় রয়েছে, যা চীন ছাড়া অন্য যেকোনো দেশের চেয়ে বেশি।

মালয়েশিয়ার কোম্পানিগুলো হয় অভিযোগের তদন্তের আশ্বাস দিয়েছে অথবা নানান সংস্কারের ঘোষণা দিয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে, কর্মচারীদের সংকীর্ণ এবং জীর্ণ ডরমিটরি উন্নত করার পরিকল্পনা, চাকরি পাবার জন্য নিয়োগকারীদের যে ফি দিতে হয়েছিল তা ফেরত দেয়া।

মালয়েশিয়ার সরকারও এ ব্যাপারে গুরুত্ব দিচ্ছে। অক্টোবরে তারা কর্মসংস্থান আইনে সংশোধনীর প্রস্তাব করেছিল। প্রস্তাবে জোরপূর্বক শ্রমের জন্য দায়ী ব্যক্তিদের জেল ও জরিমানার বিধানের কথা বলা হয়। ২০৩০ সালের মধ্যে এসব চর্চা বন্ধ করার লক্ষ্যে নভেম্বর মাসে ন্যাশনাল অ্যাকশন প্ল্যান অন ফোর্সড লেবার চালু হয়।

XS
SM
MD
LG