অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

‘রাশিয়ার আগ্রাসনের’ বিরুদ্ধে সংহতির আহ্বান জানালেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী জনসন


পূর্ব ইউক্রেনের ডোনেটস্ক অঞ্চলের বাইরে আভদিভকার একটি প্রাক্তন শিল্প এলাকায় জয়েন্ট ফোর্স অপারেশনের কমান্ডার জেনারেল ওলেক্সান্ডার পাভলিউকের পরিদর্শনের সময় পাহারারত একজন ইউক্রেনীয় সেনা।৯ ফেব্রুয়ারী ২০২২।

ব্রিটেন বৃহস্পতিবার আহ্বান জানায় যাতে রাশিয়া “সহিংসতা ও রক্তপাত এড়াতে একটি কূটনৈতিক পন্থা অবলম্বন করে।” একই সময়ে তারা রাশিয়ার এমন কোন কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে সতর্ক করেছে যা ইউক্রেনের সার্বভৌমত্বকে অবমূল্যায়ন করে।

পশ্চিমা সরকারগুলো সঙ্কটময় পরিস্থিতি শান্ত করতে পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য রাশিয়ার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। সীমান্তে ১,০০,০০০-এরও বেশি সৈন্য সমাবেশ, কৃষ্ণ সাগরে যুদ্ধজাহাজ প্রেরণ এবং ইউক্রেনের আরেক প্রতিবেশি দেশ বেলারুশে সামরিক মহড়ার জন্য আরও সৈন্য ও সামরিক সরঞ্জাম পাঠিয়ে এমন সঙ্কটের সৃষ্টি করেছে রাশিয়া। বেলারুশে সামরিক মহড়া বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়েছে।

ইউক্রেনও বৃহস্পতিবার থেকে তাদের নিজেদের সামরিক মহড়া শুরু করেছে। উভয় মহড়াই ২০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলবে।

ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বৃহস্পতিবার পোল্যান্ড ও নেটো’র নেতাদের সাথে সাক্ষাৎ করবেন। তার দফতরের ভাষ্যমতে তিনি “রাশিয়ার আগ্রাসনের ক্ষতি বহনকারী নেটো মিত্রদের প্রতি সংহতির” আহ্বান জানিয়েছেন।

প্রতিবেশি দেশ ইউক্রেনে রাশিয়ার আক্রমণের কারণে উদ্ভূত কোন সম্ভাব্য মানবিক সঙ্কটে সাড়া দেওয়ার জন্য ১,০০০ ব্রিটিশ সৈন্য প্রস্তুত রাখার আদেশ দিয়েছেন জনসন।

এক বিবৃতিতে জনসন বলেন, “আমদের যা দরকার তা হল প্রকৃত অর্থে কূটনীতি, জবরদস্তির কূটনীতি নয়।” তিনি আরও বলেন, “একটি জোট হিসেবে আমাদের অবশ্যই এটা পরিষ্কারভাবে প্রকাশ করতে হবে যে কিছু নীতিতে আমরা কোন ছাড় দিব না। এর মধ্যে নেটোর সকল মিত্রদের নিরাপত্তা এবং ইউরোপের সকল গণতান্ত্রিক দেশের নেটোতে সদস্যপদের আকাঙ্খার অধিকার রয়েছে।”

হোয়াইট হাউজ-এর প্রেস সেক্রেটারি জেন সাকি বুধবার সংবাদকর্মীদের বলেন যে, সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে রাশিয়া পরিস্থিতি অশান্ত করার মত পদক্ষেপ নিচ্ছে এবং যুক্তরাষ্ট্র আশা করে যে সেটির পরিবর্তন হবে।

এর আগে বুধবার রাশিয়ার উচ্চ পদস্থ সামরিক নেতারা বেলারুশে পৌঁছান। সেখানে বেলারুশের সামরিক বাহিনীর সাথে ৩০,০০০ রাশিয়ার সৈনিকের সামরিক মহড়া তত্ত্বাবধান করছেন তারা।

XS
SM
MD
LG