অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টকে যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থন নিশ্চিত করলেন বাইডেন 


ইউক্রেনের প্রেসিডেন্সিয়াল প্রেস অফিসের দেয়া ছবিতে দেখা যাচ্ছে প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেন্সকি কথা বলছেন এক সংবাদ সম্মেলনে। ফেব্রুয়ারি ১২, ২০২২। (ইউক্রেনের প্রেসিডেন্সিয়াল প্রেস অফিস/ এপি)

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন রবিবার ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেন্সকিকে “ইউক্রেনের সার্বভৌমত্ব ও ভৌগলিক অখন্ডতার” বিষয়ে ওয়াশিংটনের অঙ্গীকার নিশ্চিত করেছেন। যুক্তরাষ্ট্র দাবি করছে যে, আগামী কয়েক দিনে ইউক্রেনে রাশিয়ার আক্রমণের একটি “স্পষ্ট সম্ভাবনা” রয়েছে।

ওয়াশিংটনের বাইরে প্রেসিডেন্টের আরেকটি আবাসস্থল, ক্যাম্প ডেভিড থেকে টেলিফোনে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের সাথে আলাপ করেন বাইডেন। প্রেসিডেন্ট বাইডেন সেখানে সপ্তাহান্তটি কাটাতে অবস্থান করছেন। পশ্চিমা কর্মকর্তারা অধিকতর শঙ্কা প্রকাশ করেছেন যে, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই এক সময়ের সোভিয়েত ইউনিয়নের এই রিপাবলিকটিকে আক্রমণ করতে পারে। বুধবারের মধ্যে ইউক্রেন আক্রমণের আশঙ্কা রয়েছে বলে ইতোমধ্যে তথ্য পাওয়া গিয়েছে।

হোয়াইট হাউজ এক বিবৃতিতে জানায় যে, বাইডেন “[জেলেন্সকিকে] এটা পরিষ্কার করেছেন যে ইউক্রেনের বিরুদ্ধে রাশিয়ার আর যে কোন আগ্রাসনে যুক্তরাষ্ট্র নিজেদের মিত্র ও সহযোগীদের সাথে নিয়ে দ্রুত ও নিশ্চিত ভাবেই তাতে সাড়া দিবে”।

তবে রাশিয়া আক্রমণ করলে, ইউক্রেনে যুদ্ধ করার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের সেনা পাঠানোর সম্ভাবনা নাকচ করে দিয়েছেন বাইডেন। যদিও এমন পরিস্থিতিতে “দ্রুত ও কঠোর” অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপের প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

হোয়াইট হাউজ জানায় যে বাইডেন ও জেলেন্সকি রাশিয়ার আক্রমণের বিষয়ে “কূটনীতি ও প্রতিরোধ চালিয়ে যাওয়ার গুরুত্বের বিষয়ে একমত হন”। তবে পুতিনের প্রতি পশ্চিমা কূটনৈতিক প্রস্তাবগুলো এখনও পর্যন্ত অচলাবস্থা কাটাতে ব্যর্থ হয়েছে।

এদিকে একাধিক আন্তর্জাতিক এয়ারলাইনস যুদ্ধের হুমকির কারণে, ইউক্রেনে ফ্লাইট পরিচালনা বন্ধ করে দিয়েছে। তবে ইউক্রেন জানিয়েছে যে তারা তাদের আকাশসীমা বন্ধ ঘোষণা করেনি।

নেদারল্যান্ডের কেএলএম এয়ারলাইন শনিবার জানায় যে, পরবর্তী ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত তারা ইউক্রেনে তাদের ফ্লাইট বাতিল করে দিয়েছে।

ইউক্রেনের চার্টার এয়ারলাইন, স্কাইআপ রবিবার জানায় যে পর্তুগালের মাদেরা থেকে কিয়েভে চলাচলকারী ফ্লাইটটি মলদোভার রাজধানী চিসিনাউ-এ পাঠানো হচ্ছে। এয়ারলাইনটির বিমানগুলির মালিকানায় থাকা আয়ারল্যান্ডের কোম্পানিটি ইউক্রেনের আকাশসীমায় তাদের বিমান পরিচালনায় নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে।

XS
SM
MD
LG