অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সিরিয়ার রাজধানীতে সামরিক বাসে বোমা বিস্ফোরণ, একজন নিহত 


ফুয়া এবং কাফ্রাইয়া শহরে বোমা বিস্ফোরণে নিহতদের জানাজার সময় দামেস্কের অদূরে সাইয়িদা জেইনাব মসজিদে দাঁড়িয়ে এক বালক। (ফাইল ছবি- এএফপি)

মঙ্গলবার সকালে দামেস্কে সিরিয়ার সৈন্যদের বহনকারী বাসের সাথে সংযুক্ত একটি বোমা বিস্ফোরণে একজন সেনা নিহত এবং ১১ জন আহত হয়েছে। সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন এ খবর জানায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাজধানীর উল্লেখযোগ্য স্থান উমাইয়াদ স্কয়ারের কাছে একটি কাস্টমস গোলচত্বরে ভিড়ের মধ্যে বিস্ফোরণটি ঘটে। বিস্তারিত আর কিছু এতে বলা হয়নি। তাৎক্ষণিকভাবে কেউ এই ঘটনার দায় স্বীকার করেনি।

সাম্প্রতিক মাসগুলোতে দামেস্কে এই ধরনের হামলা হয়েছে। অন্যথায় রাজধানীর পরিবেশ স্থিতিশীল ছিল।

সরকারি বাহিনী এখন প্রেসিডেন্ট বাশার আসাদের মিত্র রাশিয়া এবং ইরানের সহায়তায় সিরিয়ার বেশিরভাগ অংশ নিয়ন্ত্রণ করছে, বিদ্রোহীদের বেশিরভাগই দেশটির উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ ইদলিবে কোণঠাসা হয়ে পড়েছে। এদিকে যুক্তরাষ্ট্র ও তুরস্কের সৈন্যরা দেশটির উত্তর ও পূর্ব অংশে মোতায়েন রয়েছে।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে দামেস্কে হামলার ঘটনা বিরল।

সিরিয়ার মধ্য ও পূর্বাঞ্চলে সিরিয়ার সেনাদের ওপর আইএস যোদ্ধারা হামলা চালিয়েছে। এই উগ্রপন্থী গোষ্ঠীটি উত্তর-পূর্বে যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত কুর্দি-নেতৃত্বাধীন যোদ্ধাদের ওপরও হামলা চালিয়েছে, যার মধ্যে জানুয়ারির শেষের দিকে একটি কারাগারে হামলার ঘটনাও রয়েছে। এর ফলে হাসসাকেহ শহরে ১০ দিনের লড়াই হয়। । সংঘর্ষে প্রায় ৫০০ জন নিহত হয়।

অন্যদিকে বিরোধীদের সিরিয়ান সিভিল ডিফেন্স গ্রুপ হোয়াইট হেলমেট জানিয়েছে, তুরস্ক সমর্থিত বিরোধী যোদ্ধাদের দ্বারা অধিষ্ঠিত উত্তরের শহর আজাজে একটি রকেট হামলায় ৩জন বেসামরিক লোক নিহত ও একটি শিশুসহ আরও ৭জন আহত হয়েছে।

এতে বলা হয়,হামলাটি কুর্দি নেতৃত্বাধীন সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্স বা সিরিয়ার সরকারি বাহিনী দ্বারা নিয়ন্ত্রিত এলাকা থেকে হয়েছে কিনা তা স্পষ্ট নয়।

২০১১ সালের মার্চ মাসে সিরিয়ার সংঘাত শুরু হয়েছিল এবং এতে প্রায় ৫ লাখ মানুষ নিহত হয়েছে। সিরিয়ার ২.৩ কোটি জনসংখ্যার অর্ধেক বাস্তুচ্যুত হয়েছে এবং দেশের বড় অংশ ধ্বংস হয়ে গেছে।

XS
SM
MD
LG