অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইউক্রেনের যুদ্ধের জন্য পশ্চিমকে দায়ী করেছেন


জেনেভায় জাতিসংঘের ইউরোপীয় সদর দফতরে জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলের ৪৯তম অধিবেশনে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সার্গেই ল্যাভরভের (স্ক্রিনে) প্রাক-রেকর্ড করা ভিডিও বার্তা চলার সময় রাষ্ট্রদূত এবং কূটনীতিকরা প্রতিবাদ স্বরুপ বের হয়ে যাচ্ছেন। ১লা মার্চ, ২০২২,ছবি- রয়টার্স

ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসন ষষ্ঠ দিনে প্রবেশ করার সাথে সাথে, রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সার্গেই ল্যাভরভ যুক্তরাষ্ট্র এবং তার মিত্রদের দোষারোপ করেছেন এই বলে যে তাঁরা কিয়েভের একটি নব্য-নাৎসি শাসন সমর্থন করছে । ইউক্রেন ও পশ্চিমা দেশগুলো বলছে, রাশিয়া ইউক্রেনের শহরগুলোতে বিনা প্ররোচনায় হামলা চালাচ্ছে।

রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ যখন বক্তৃতা শুরু করেন, তখন জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিল চেম্বারের বেশিরভাগ মানুষ উঠে গিয়ে সম্মিলিতভাবে কক্ষ ছেড়ে চলে যান। তবে ল্যাভরভ সে সম্পর্কে অবগত ছিলেন না, কারণ, তিনি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কাউন্সিলে বক্তৃতা দিচ্ছিলেন যদিও তিনি সশরীরে উপস্থিত হয়েই ভাষণ দিতে চেয়েছিলেন।

ল্যাভরভ ক্রুদ্ধভাবে ইউরোপীয় ইউনিয়নকে অভিযুক্ত করেছে কারণ তাদের আকাশপথের উপর দিয়ে জেনেভায় তাঁকে উড়তে বাধা দেওয়ার মাধ্যমে তার চলাচলের স্বাধীনতায় বাধা দেওয়া হয়েছে । তারপরে তিনি পরবর্তী ২০ মিনিট ওয়াশিংটনের নেতৃত্বে "সম্মিলিত পশ্চিম" এর নীতির তীব্র সমালোচনা করেছেন, তিনি দাবি করেছেন যে ২০১৪ সাল থেকে কিয়েভ সরকার তার নিজের জনগণের সাথে যুদ্ধ করছে।

তিনি ইউক্রেনের সরকারকে, দোনেৎস্ক ও লুহানস্কের বিচ্ছিন্নতাবাদী অঞ্চলে রাশিয়ান ও রুশভাষী নাগরিকদের বিরুদ্ধে আট বছর ধরে যুদ্ধ চালিয়ে যাবার এবং অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের জন্য অভিযুক্ত করেছেন।

এই মন্তব্যগুলি বেশিরভাগ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের দৃষ্টিভঙ্গির সম্পূর্ণ বিপরীত। তিনি বলেন, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন তাদের ভাগ্য নিয়ে উদাসীন থাকতে পারেন না। তাই, তিনি অঞ্চলগুলির স্বাধীনতাকে স্বীকৃতি দেওয়ার এবং তাঁর কথায় বাসিন্দাদের রক্ষা করার জন্য একটি বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

XS
SM
MD
LG