অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইউক্রেনে আক্রমণের সংবাদটি নিজ দেশে গোপন করেছিল উত্তর কোরিয়া কর্তৃপক্ষ


দক্ষিণ কোরিয়ার সিউলে রেলওয়ে স্টেশনে সংবাদ চলাকালীন লোকেরা উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণের ভিডিও দেখছে।২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২২।

রাশিয়ার ইউক্রেন আক্রমণ সম্পর্কে নিজ দেশের মানুষকে জানাতে উত্তর কোরিয়ার কর্তৃপক্ষ কয়েকদিন দেরী করে। শুরুতে গোপন বৈঠকে শুধুমাত্র ক্ষমতাসীন কোরিয়ান ওয়ার্কার্স পার্টির সদস্যদেরকে সংবাদটি জানানো হয়, যারা পরবর্তীতে সেটি অন্যদের জানান বলে সরকারী কর্মকর্তারা আরএফএ-কে জানিয়েছেন।

উত্তর কোরিয়ার এক দলীয় শাসনব্যবস্থায়, ক্ষমতাসীন ওয়ার্কার্স পার্টির সদস্যপদ শুধুমাত্র বিশেষ ব্যক্তি বা সামরিক বাহিনীতে দীর্ঘদিন দায়িত্বপালনকারী দৃষ্টান্তমূলক সৈনিকদেরকেই দেওয়া হয়।

রাশিয়ার বাহিনী ২৪ ফেব্রুয়ারী ইউক্রেনে সর্বাত্মক হামলা শুরু করে। তবে, তার অন্তত দুইদিন পর পিয়ংইয়ং ক্ষমতাসীন দলের সদস্যদের বিষয়টি সম্পর্কে অবগত করে।

১৯৪৮ সালে সোভিয়েত ইউনিয়ন উত্তর কোরিয়ার প্রতিষ্ঠায় সহায়তা করে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে জাপানের পরাজয়ের পর, কোরিয়া উপদ্বীপটির উত্তরের অর্ধেক অংশ সোভিয়েত ইউনিয়ন দখল করে নিয়ে, বর্তমান নেতা কিম জং উন এর পিতামহকে দেশটির নেতা হিসেবে বসায়। সোভিয়েত ইউনিয়নের পতনের পর রাশিয়ার সাথে দেশটির সম্পর্কের অবনতি হলেও, ২০০০ সালে ভ্লাদিমির পুতিনের শাসনামলে, উত্তর কোরিয়ার সাথে সম্পর্ক পুনরুজ্জীবিত করার পথে এগোয় রাশিয়া।

দেশটির উত্তর-পূর্বাঞ্চলের উত্তর হ্যামগিয়ং প্রদেশে দলের সদস্যদের সংবাদটি দেওয়ার পর সেটি সাধারণ মানুষের মধ্যে দ্রুত ছড়াতে শুরু করে বলে, স্থানীয় এক বাসিন্দা আরএফএ-কে জানান।

সূত্রটি বলে, “তারা শুধু এতটুকুই বলেনি যে রাশিয়া যুদ্ধ শুরু করেছে, বরং তারা আমাদেরকে আদেশ করেছে যাতে যে কোন পরিস্থিতিতে তাৎক্ষণিকভাবে যুদ্ধে অবতীর্ণ হতে আমরা প্রস্তুত থাকি।”

সূত্রটি আরও বলে, “এর জবাবে কিছু কিছু বাসিন্দা সাহসী প্রতিক্রিয়া জানান এই বলে যে, তারা আশা করেন যেন যুদ্ধ শুরু হয় এবং যেই জঘন্য ব্যবস্থাটির মধ্যে আমরা বসবাস করি সেটির অবসান হয়।”

সূত্রটি জানায় যে, কিছু কিছু বাসিন্দা দেশটির সরকারের দ্বিমুখী নীতির বিষয়টিও স্বীকার করেন, যেটিতে কিনা তারা রাশিয়ার পক্ষ সমর্থন করছে যদিও রাশিয়া একটি স্বাধীন দেশকে আক্রমণ করেছে।

XS
SM
MD
LG