অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

জার্মানি ৩৫টি লকহিড এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান কিনবে


যুক্তরাষ্ট্রের এনএফএল ফাইনালে নৌবাহিনীর এফ-৩৫ জেটের মহড়া। (ফাইল ছবি- এপি)

জার্মানি তার পুরানো টর্নেডো বিমানের প্রতিস্থাপনে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠান লকহিড মার্টিন এলএমটি.এন নির্মিত এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান কিনবে, সরকারি দুটি সূত্র জানিয়েছে। একটি সূত্র বলেছে, বার্লিন ৩৫টি পর্যন্ত স্টিলথ জেট কেনার লক্ষ্য রেখেছে৷

একটি জার্মান প্রতিরক্ষা সূত্র ফেব্রুয়ারির শুরুতে রয়টার্সকে বলেছিল যে, জার্মানি এফ-৩৫ কেনার পরিকল্পনা করছে। তবে এখনো কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।

টর্নেডো হলো একমাত্র জার্মান জেট, যা সংঘাতে কাজে লাগাতে জার্মানিতে সংরক্ষিত যুক্তরাষ্ট্রের পরমাণু বোমা বহন করতে সক্ষম।

তবে বিমানবাহিনী ১৯৮০ সাল থেকে জেটটি ব্যবহার করছে এবং বার্লিন ২০২৫ থেকে ২০৩০ সালের মধ্যে এই মডেলটি পর্যায়ক্রমে অপসারণ করার পরিকল্পনা করেছে।

জার্মানির এফ-৩৫ কেনা বোয়িং কোম্পানির (বিএ.এন) জন্য একটি বড় ধাক্কা হবে। সাবেক জার্মান প্রতিরক্ষামন্ত্রী অ্যানেগ্রেট ক্র্যাম্প-কারেনবাওয়ার টর্নেডোর প্রতিস্থাপনে বোয়িংয়ের এফ-১৮ কেনার পক্ষে ছিলেন।

এই সিদ্ধান্তে ফ্রান্সও ক্ষুদ্ধ হতে পারে। এফ-১৮ বা আরও উন্নত এফ-৩৫ নিয়ে জার্মানির আগ্রহের ফলে ফ্রান্স এবং জার্মানির একটি চুক্তি প্রভাবিত হতে পারে। এই ফ্রাঙ্কো-জার্মান যৌথ প্রকল্পে একটি ফাইটার জেট তৈরি করা হচ্ছে যেটা ২০৪০ সাল নাগাদ প্রস্তুত হওয়ার কথা।

চ্যান্সেলর ওলাফ শোলজ দুই সপ্তাহ আগে প্যারিসের সঙ্গে চলমান যৌথ কর্মসূচিকে সমর্থন করেছিলেন।

সেই সময়ে, শোলজ আরও ঘোষণা করেন যে, ফ্রাঙ্কো-জার্মান এয়ারবাস এআইআর.পিএ কর্তৃক নির্মিত ইউরোফাইটার জেটটিকে ইলেকট্রনিক যুদ্ধে সক্ষম করতে আরও উন্নত করা হবে এবং যেটি টর্নেডোও করতে পারে।

XS
SM
MD
LG