অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সাহসিকতার জন্য পুরস্কার পেলেন তিন আফ্রিকান নারী


ফাসিয়া বোয়েনোহ হ্যারিস। (সৌজন্যে: জন হিলি)
ফাসিয়া বোয়েনোহ হ্যারিস। (সৌজন্যে: জন হিলি)

দক্ষিণ আফ্রিকার কেপ টাউনের ঠিক বাইরে কেপ ফ্ল্যাটস সম্প্রদায়কে জর্জরিত করা গ্যাং সহিংসতা প্রশমনের চেষ্টা করার সময় রোগচান্দা পাসকো মৃত্যু হুমকির মুখোমুখি হন। ফাসিয়া বোয়েনোহ হ্যারিস লাইবেরিয়ায় নারীর অধিকার এবং যৌন সহিংসতার বিরুদ্ধে সুরক্ষার পক্ষে ওকালতি করার সময় হয়রানির সম্মুখীন হন। নাজলা মাঙ্গৌশ গত এক দশকের গৃহযুদ্ধের কারণে গভীরভাবে বিভক্ত লিবিয়ায় এক বছর আগে জাতিসংঘ-সমর্থিত অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ভূমিকা পালন করেন।

এক প্রেস বিবৃতি অনুযায়ী, “শান্তি, ন্যায়বিচার, মানবাধিকার, লিঙ্গ সমতা এবং সমতার পক্ষে কথা বলার ক্ষেত্রে ব্যতিক্রমী সাহস, শক্তি এবং নেতৃত্ব প্রদর্শনের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্টের ২০২২ সালের আন্তর্জাতিক সাহসী পুরস্কারে সম্মানিত হওয়া এক ডজন নারীর মধ্যে এই তিনজন আফ্রিকান নারীও রয়েছেন, যারা কাজ করতে গিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়েছেন এবং ত্যাগ স্বীকার করেছেন”।

সোমবার তাদের আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃতি দেয়া হয়। মহামারীর কারণে, এ বছর অনুষ্ঠানটি ওয়াশিংটনে ব্যক্তিগতভাবে অনুষ্ঠিত না হয়ে, ভার্চুয়ালী তাদের সবাইকে একত্রিত করে। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন ওই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, এছাড়া ফার্স্ট লেডি জিল বাইডেনসহ অনেকেই এতে বক্তব্য রাখেন।

রোগচান্দা পাসকো

পাসকো (৪৭), কেপ ফ্ল্যাটসে কর্মরত একজন অপরাধ প্রতিরোধ কর্মী, যিনি কেপ টাউনের বাইরের একটি দরিদ্র এবং মিশ্র-জাতির লোকদের নিয়ে কাজ করছেন। ১৯৬০-এর দশকে দক্ষিণ আফ্রিকার বর্ণবাদ ব্যবস্থার অধীনে ওই লোকদের জোরপূর্বক পুনর্বাসিত করা হয়েছিল।

রোগচান্দা পাসকো (ছবি: পাসকোর টুইটার একাউন্ট থেকে নেয়া)।
রোগচান্দা পাসকো (ছবি: পাসকোর টুইটার একাউন্ট থেকে নেয়া)।

গ্যাংরা সেখানে এক দশক ধরে তাদের আধিপত্য বজায় রেখেছিল। অবাধে চলছিল মাদক পাচার, বন্দুকযুদ্ধ, পতিতাবৃত্তি এবং আরও অনেক কিছু। পাসকো ভিওএ-কে বলেছেন, বর্তমানে ওই এলাকায় সহিংসতা “স্বাভাবিক ঘটনায়” পরিণত হয়েছে।

পাসকো আশা করেন, এই সাহসী পুরস্কারের জন্য তাঁকে নির্বাচিত করাটা অন্যদের বুঝতে সাহায্য করবে যে, যতই সুবিধাবঞ্চিত হোক না কেন, তারাও অনেক মূল্যবান অবদান রাখতে পারে।

তিনি বলেন, “এটি আমাদের তরুণ মহিলা নেতাদের জন্য অনেক অর্থ বহন করবে”।

ফেসিয়া বোয়েনোহ হ্যারিস

২০০৫ সালে, হ্যারিস লাইবেরিয়ার রাজধানী মনরোভিয়ার আফ্রিকান মেথডিস্ট এপিস্কোপাল ইউনিভার্সিটিতে প্রথম বর্ষের ছাত্রী ছিলেন। সেসময় তিনি এবং তাঁর কিছু সহপাঠী মিলে প্যারামাউন্ট ইয়াং উইমেন ইনিশিয়েটিভ নামে একটি উদ্যোগ গ্রহণ করেন। তারা আর্থিক প্রয়োজন, পারিবারিক বোঝা, একাডেমিক অসুবিধা এবং আরও অনেক কিছুর সাথে লড়াইরত অন্যান্য শিক্ষার্থীদের সাহায্য করার উদ্দেশ্যে বৃত্তি প্রদানের জন্য অর্থ সংগ্রহ করতে শুরু করে।

ফেসিয়া বোয়েনোহ হ্যারিস।
ফেসিয়া বোয়েনোহ হ্যারিস।

আজ, অলাভজনক ওই উদ্যোগটি কিশোরী মেয়ে এবং যুবতী মহিলাদের জন্য নিরাপদ স্থানের সহায়তা প্রদান করে চলেছে। এছাড়া শিক্ষা, পরামর্শদান এবং নেতৃত্বের প্রচারও করছে৷

হ্যারিস বলেন, লাইবেরিয়ায়, “আমরা একটি খুব শক্তিশালী পিতৃতান্ত্রিক ব্যবস্থার সাথে যুদ্ধ করছি, যা দীর্ঘদিন ধরে মহিলাদের প্রান্তিক করে রেখেছে”।

হ্যারিস বলেন, জনগণের জন্য “সময়মত ন্যায়বিচার পাওয়া” প্রয়োজন।

হ্যারিস বলেন, কারেজ অ্যাওয়ার্ড “লাইবেরিয়ার সেইসব নারীদের সম্মানিত করবে, যারা দেশের উন্নয়নে অগ্রসর হওয়ার সময় অন্যায়ের অবসান নিশ্চিত করার জন্য ক্রমাগত কঠোর পরিশ্রম করেছে”। এটি ব্যক্তিগত চ্যালেঞ্জকেও প্রতিনিধিত্ব করে: “আমাদের আরও অনেক কিছু করার বৃহত্তর দায়িত্ব রয়েছে ... বিশেষ করে আমাদের পরবর্তী প্রজন্মের জন্য একটি ভাল লাইবেরিয়া রেখে যাওয়া”।

লিবিয়ার নাজলা মাঙ্গুশ

মাঙ্গুশকে গত ১৫ মার্চ, ২০২১ সালে লিবিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসাবে নিযুক্ত করা হয়েছিল – ৭০ লাখ জনসংখ্যা অধ্যুষিত উত্তর আফ্রিকার দেশটিতে ওই পদে অধিষ্ঠিত তিনিই প্রথম কোন মহিলা।

নাজলা মাঙ্গুশ (ফাইল ছবি)।
নাজলা মাঙ্গুশ (ফাইল ছবি)।

একজন মানবাধিকার আইনজীবী, তিনি ওয়াশিংটনের বাইরে জর্জ মেসন ইউনিভার্সিটির স্কুল ফর কনফ্লিক্ট অ্যানালাইসিস অ্যান্ড রেজোলিউশনে ডক্টরেট প্রার্থী। মাঙ্গুশ - যিনি ভার্জিনিয়াতেও ইস্টার্ন মেনোনাইট ইউনিভার্সিটি থেকে দ্বন্দ্ব রূপান্তর বিষয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেছেন - মন্ত্রিসভায় অংশ নেওয়ার জন্য তার গবেষণামূলক প্রবন্ধের কাজ বন্ধ করে রাখতে হয়েছিল।

জিএমইউ-এর দ্বন্দ্ব সমাধান এবং নৃবিজ্ঞানের অধ্যাপক সুসান এফ. হিরশ, যিনি মাঙ্গুশের গবেষণার তত্ত্বাবধানে আছেন। তিনি বলছেন, “তিনি তার দেশের সেবা করতে চেয়েছিলেন”, … তিনি এমন একজন মানুষ যিনি সত্যিকার অর্থে একজন কূটনৈতিক। তিনি জন্মগত শান্তিপ্রিয়”।

এডব্লিউআইইউ এই বছরের পুরস্কৃত ব্যক্তিদের সম্মানে আগামী ২৪শে মে লস অ্যাঞ্জেলেসে একটি নৈশভোজ আয়োজনের পরিকল্পনা করেছে। সেখানে, পুরষ্কার প্রদান অনুষ্ঠানে সংগঠনটি নিজেও ১৫-বছরের সহযোগিতার স্বীকৃতিস্বরূপ, স্টেট ডিপার্টমেন্টের জেন্ডার চ্যাম্পিয়ন অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ করবে।

XS
SM
MD
LG