অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইউক্রেনের অর্থনীতি গভীর মন্দার মুখোমুখি হতে চলেছেঃ আইএমএফ


ইউক্রেনে চলমান রাশিয়ার আগ্রাসনে কিয়েভ ছেড়ে যাচ্ছেন স্থানীয় অধিবাসীরা। ফেব্রুয়ারী ২৪ ২০২২। (ছবি- রয়টার্স)

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইউক্রেনে চলমান রাশিয়ার আগ্রাসন মানবজীবনের ভয়াবহ ক্ষতি এবং দেশটির অর্থনীতিরও যথেষ্ট ক্ষতিসাধন করেছে। ২০২২ সালে ইউক্রেনের অর্থনীতি ন্যূনতম ১০ শতাংশ হ্রাস পাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সোমবার প্রকাশিত আইএমএফ-এর ওই প্রতিবেদনে বলা হয়,পূর্বে ইরাক,লেবানন,সিরিয়া এবং ইয়েমেন থেকে সংগৃহীত যুদ্ধকালীন প্রকৃত জিডিপি সংকোচনের তথ্যের ভিত্তিতে ধারণা করা যায়, ইউক্রেনের অর্থনীতি ২৫ থেকে ৩৫ শতাংশ পর্যন্ত সংকুচিত হতে পারে।

মানবিক সংকটের কারণে দীর্ঘ মন্দা এবং ক্রমবর্ধমান পুনর্গঠন ব্যয় প্রত্যাশিত বলে জানায় আইএমএফ । জাতিসংঘের প্রকাশিত পরিসংখ্যান অনুসারে, রাশিয়ার আক্রমণ শুরু হওয়ার পর থেকে ২৮ লাখেরও বেশি ইউক্রেনীয় দেশ ছেড়ে পালিয়েছে যা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ইউরোপে সবচেয়ে বড় শরণার্থী সংকট।

গণমাধ্যমে ইউক্রেন সংক্রান্ত এক আলোচনায় আইএমএফের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ক্রিস্টালিনা জর্জিভা বলেন, “এমনকি সহিংসতা যদি এখনই শেষ হয়, পুনরুদ্ধার ও পুনর্গঠনের ব্যয় ইতোমধ্যেই বিশাল আকার ধারণ করেছে।“

আইএমএফ জানিয়েছে, ক্ষয়ক্ষতির বিস্তারিত মূল্যায়ন না হওয়া পর্যন্ত প্রতিবেদনে অর্থায়নের হিসাবকে “একেবারে ন্যূনতম” হিসেবে বিবেচনা করা উচিত। অর্থনৈতিক বাস্তবতা বর্তমান অনুমানের চেয়ে অনেক বেশি হতে পারে।

আইএমএফ-এর র‍্যাপিড ফিনান্সিং ইন্সট্রুমেন্টের অধীনে ১৪০ কোটি ডলারের জরুরি অর্থায়ন প্যাকেজের জন্য ইউক্রেনের অনুরোধ আইএমএফ অনুমোদন করার কয়েকদিন পরে প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হয়।

XS
SM
MD
LG