অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইউক্রেনে হামলা বন্ধ করতে রাশিয়াকে আদেশ করলো জাতিসংঘের সর্বোচ্চ আদালত


নেদারল্যান্ডসের হেগে আন্তর্জাতিক বিচার আদালত (আইসিজে)। (ফাইল ছবি- রয়টার্স)

জাতিসংঘের সর্বোচ্চ আদালত রাশিয়াকে অবিলম্বে ইউক্রেনে তাদের আক্রমণ বন্ধ করার আহ্বান জানিয়েছে। আদালতটির দেওয়া প্রাথমিক এই রায়টি বাধ্যতামূলক হলেও তা প্রয়োগ করা কষ্টসাধ্য হতে পারে।

আন্তর্জাতিক বিচার আদালতের (আইসিজে) প্রেসিডেন্ট, জোন ডনোহিউ এর পাঠ করা এই রায়টি দ্ব্যর্থহীন ছিল।

“ইউক্রেনের ভূখন্ডে ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২২ এ আরম্ভ করা তাদের সামরিক অভিযানটি রাশিয়ান ফেডারেশন অবিলম্বে স্থগিত করবে।”

যুদ্ধের ফলে সৃষ্টি হওয়া প্রসারমান মানবিক পরিস্থিতির বিষয়েও বক্তব্য দেন তিনি।

“ইউক্রেনে ঘটমান মানবিক পরিস্থিতিটির ব্যাপ্তি সম্পর্কে আদালত সম্যক অবগত এবং অব্যাহত জীবনহানি ও মানুষের ভোগান্তির বিষয়ে গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। ইউক্রেনে রাশিয়ান ফেডারেশনের শক্তি প্রয়োগের বিষয়ে আদালত গভীরভাবে উদ্বিগ্ন, যে বিষয়টি আন্তর্জাতিক আইনের বিষয়ে অত্যন্ত গুরুতর প্রশ্ন উত্থাপন করে।”

আইসিজে বিচারকগণ রায়টির পক্ষে ১৩-২ ভোট প্রদান করেন। রায়টির বিরোধিতাকারী দুই বিচারক রাশিয়া এবং চীনের নাগরিক।

আইসিজে’র রায়টি এই বিশ্ব আদালত কর্তৃক গৃহীত প্রথম পদক্ষেপ মাত্র। যদিও রায়টি বাধ্যতামলক, তবুও এটি ইউক্রেনের জন্য হয়ত শুধুই একটি প্রতীকী বিজয়। রায়টি প্রয়োগ করা কষ্টসাধ্য হবে, যদি না তা একেবারেই অসম্ভব হয়।

গত মাসে রাশিয়ার আক্রমণটির পর কিয়েভ আইসিজে-তে মামলাটি দায়ের করে। রাশিয়াপন্থী বিচ্ছিন্নতাবাদীদের গণহত্যা থামানোর উদ্দেশে হামলাটি করা – রাশিয়ার এমন দাবিকে চ্যালেঞ্জ করা হয় মামলাটিতে।

গত সপ্তাহে মামলাটির প্রারম্ভিক শুনানিতে রাশিয়ার প্রতিনিধিরা উপস্থিত হননি। তবে মস্কো দাবি করেছে যে, আইসিজে’র কোন কিছু আরোপ করা উচিৎ নয় এবং আদালতটির এ বিষয়ে কোন এখতিয়ার নেই।

তবে, মামলাটির সম্পর্কে বাদ দিলেও, শুধুমাত্র নিজেদের এখতিয়ার এবং মামলাটির যোগ্যতা সম্পর্কে আইসিজে’র নিজস্ব রায় দিতে কয়েক মাস বা কয়েক বছরও লাগতে পারে।

XS
SM
MD
LG