অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইউক্রেনে যুদ্ধের ফলে আবারও শরণার্থী হয়েছেন হাজার হাজার আফগান মানুষ


 একটি আফগান পরিবার, যারা একবার আফগানিস্তানে যুদ্ধ থেকে পালিয়ে গিয়েছিল, তাঁরা এখন পোল্যান্ডের মেডিকাতে ইউক্রেনে রাশিয়ান আক্রমণ থেকে রেহাই পাবার উদ্দেশ্যে
একটি শরণার্থী কেন্দ্র যাবার জন্য বাসের অপেক্ষা করছে৷ ২৮ ফেব্রুয়ারী, 2022, ছবি- রয়টার্স
একটি আফগান পরিবার, যারা একবার আফগানিস্তানে যুদ্ধ থেকে পালিয়ে গিয়েছিল, তাঁরা এখন পোল্যান্ডের মেডিকাতে ইউক্রেনে রাশিয়ান আক্রমণ থেকে রেহাই পাবার উদ্দেশ্যে একটি শরণার্থী কেন্দ্র যাবার জন্য বাসের অপেক্ষা করছে৷ ২৮ ফেব্রুয়ারী, 2022, ছবি- রয়টার্স

তিন সপ্তাহ আগে হাসিব নুরী জীবনে দ্বিতীয়বারের মত শরণার্থীতে পরিণত হন।

৪৫ বছর বয়সী এই আফগান আইনজীবি, তার স্ত্রী ও পাঁচ সন্তানকে নিয়ে ইউক্রেন ও স্লোভাকিয়ার সীমান্তের নিকটে একটি অস্থায়ী শরণার্থী শিবিরে বাস করছিলেন যখন সেখানে রাশিয়া বোমাবর্ষণ শুরু করে।

ভয়েস অফ আমেরিকা(ভিওএ)-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে নুরী বলেন, “আমার সন্তানরা আতঙ্কিত হয়ে পড়ে এবং আমরা ঐ স্থানটি ছেড়ে সীমান্তের উদ্দেশ্যে যাত্রা করার সিদ্ধান্ত নেই”।

হাজার হাজার মানুষ পশ্চিম ইউরোপীয় দেশগুলোর সংলগ্ন ইউক্রেনের সীমান্তগুলোর দিকে পালাতে থাকেন। ২৪ ফেব্রুয়ারিতে স্লোভাকিয়ায় প্রবেশের একটি ব্যর্থ চেষ্টার পর, অন্যান্য শরণার্থীদের সাথে মিলে পরিবারটি পোল্যান্ডের সীমান্তের দিকে যাত্রা শুরু করে। ঘটনাটি গত বছরের কাবুল ছেড়ে পালানোর তাদের আপ্রাণ চেষ্টার কথাটিই আবারও তাদের চোখের সামনে তুলে ধরে।

নেদারল্যান্ডের বারনেভেল্ড শরণার্থী শিবির থেকে নুরী জানান, “দুই দিন ও দুই রাত ধরে ৫০ কিলোমিটারের বেশি পথ হেঁটে পাড়ি দেওয়ার পর, আমরা পোল্যান্ডে প্রবেশ করি”। এই শরণার্থী শিবিরটিতে তিনি দুই সপ্তাহ আগে এসে পৌঁছেছেন।

১৫ অগাস্টে তালিবান ক্ষমতা দখলের পর, ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী, নুরী ও তার পরিবারের মত কয়েক শত আফগানকে উদ্ধার করে ইউক্রেনে নিয়ে আসে। আফগানিস্তান থেকে পালিয়ে আসা কয়েকজনকে সাম্প্রতিক মাসগুলোতে যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডায় স্থানান্তর করা হয়। তবে, তাদের বেশিরভাগই ইউক্রেনেই ছিলেন যখন কিনা গতমাসে রাশিয়া দেশটিতে আক্রমণ চালায়।

ইউক্রেনের যুদ্ধের ফলে সৃষ্ট শরণার্থী সঙ্কটটির প্রতিক্রিয়ায়, মার্চের ৪ তারিখে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ইউক্রেনের শরণার্থীদের জন্য একটি জরুরি সুরক্ষা কার্যক্রম আরম্ভ করে। সেটির আওতায় ইউক্রেনের শরণার্থীদেরকে ২৭ সদস্য বিশিষ্ট এই জোটভুক্ত দেশগুলোতে বসবাসের অধিকার, স্বাস্থ্য বীমা, শিক্ষা ও অন্যান্য সুবিধাদি প্রদান করা হয়।

সুবিধাগুলো শরণার্থী ও ইউক্রেনের অন্যান্য স্থায়ী বাসিন্দাদের জন্য প্রযোজ্য হবে। তবে, ইইউ এর নির্দেশনাটি বিভিন্ন দেশ ভিন্ন ভিন্ন ভাবে বাস্তবায়ন করছে এবং ইউক্রেন ছেড়ে পালিয়ে আসা আফগানদের মধ্যে কয়জন সাময়িক সুরক্ষার জন্য যোগ্য বিবেচিত হবেন, সেই বিষয়টি পরিষ্কার নয়।

ইউক্রেনে যুদ্ধ শুরুর পূর্বে, দেশটিতে ৫,০০০ আফগান বসবাস করতেন বলে, ওয়ারস’-তে অবস্থিত আফগান দূতাবাসের একজন রাজনৈতিক উপদেষ্টা, নিগারা মিরদাদ জানান।

যদিও তাদের মধ্যে কিছু মানুষ রোমানিয়ায় ও ইউক্রেনের অন্যান্য প্রতিবেশী দেশে পালিয়ে গিয়েছেন, তবুও প্রায় ৩,০০০ এর মত আফগান, অর্থাৎ বেশিরভাগই পোল্যান্ডে পালিয়েছেন বলে, মিরদাদ জানিয়েছেন।

XS
SM
MD
LG