অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

চুয়াডাঙ্গায় বখাটের উত্ত্যক্তের জেরে মাদরাসা ছাত্রীর আত্মহত্যা


প্রতীকী ছবি: অ্যাডোবি স্টক

বাংলাদেশের চুয়াডাঙ্গা জেলায় বখাটের উত্ত্যক্তের জেরে এক মাদরাসাছাত্রী আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। রবিবার (২০ মার্চ) সন্ধ্যায় জেলার পৌর এলাকার হকপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

মৃত মাসুমা আক্তার (১৭) হকপাড়ার চা বিক্রেতা আমিনুল ইসলামের মেয়ে ও চুয়াডাঙ্গা রেলবাজার আলিয়া মাদরাসার একাদশ শ্রেণির ছাত্রী।

মাসুমার বাবা আমিনুল ইসলাম বলেন, “গত শুক্রবার সকালে মাসুমা আমাদের চায়ের দোকান খুলে চা তৈরির ব্যবস্থা করছিল। এ সময় একজন ক্রেতা চা-খাওয়ার জন্য দোকানে আসে। ঠিক সেসময় আরামপাড়ার মোবার ছেলে কালাম (২৫) দোকানে ঢুকে ওই ক্রেতা ও আমার মেয়ের সঙ্গে খারাপ আচরণ করতে থাকে। মাসুমা নিষেধ করলে, সে মাসুমাকে চড় মারে ও একটি হাতুড়ি দিয়ে তাকে আঘাত করার চেষ্টা করে। এ সময় মাসুমা সেখান থেকে পালিয়ে যায়। পরে আমি দোকানে গেলে লোকজন মাসুমাকে কালাম কেন থাপ্পড় মেরেছে সে বিষয়ে জানতে চায়। দুপুরের পরে আমি দোকান থেকে বাড়িতে এসে সেসব বিষয় নিয়ে আমার স্ত্রীকে বকাবকি করি।”

তিনি আরও জানান, রবিবার সন্ধ্যার আগে তিনি বাড়ি ফিরে মেয়ের নাম ধরে ডাকলেও কোনো সাড়া পাননি। মেয়ে ঘুমিয়ে আছে কি না দেখতে গেলে মেয়ের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পান।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. উৎপলা বিশ্বাস বলেন, “সন্ধ্যার আগে পরিবারের সদস্যরা মেয়েটিকে জরুরি বিভাগে আনে। পরিবারের সদস্যদের কাছ থেকে জানতে পারি, সে গলায় ফাঁস দিয়েছিল। তবে জরুরি বিভাগে আমরা তাকে মৃত অবস্থায় পেয়েছি। হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে। ময়নাতদন্ত হলে মৃত্যুর সঠিক কারণ নিশ্চিত করে বলা সম্ভব হবে।”

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন বলেন, “বিকেলে সদর থানাধীন হকপাড়ায় এক মাদরাসাছাত্রীর আত্মহত্যার ঘটনা সম্পর্কে জানতে পেরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। মৃতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।”

মৃতের পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ ও ময়নাতদন্ত রিপোর্ট সাপেক্ষ পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

XS
SM
MD
LG