অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইউরোপ জুড়ে ইউক্রেনের শরণার্থীরা নিজ দেশে শান্তির জন্য প্রার্থনা করছেন


ইউক্রেনের অবরুদ্ধ শহর মারিউপোল থেকে পালিয়ে নিরাপদে যাওয়ার চেষ্টা করছেন স্থানীয়রা। মার ২০, ২০২২। (ছবি- এপি)

যুদ্ধবিধ্বস্ত কিয়েভ থেকে পাঁচদিন আগে জার্মানীতে এসে পৌঁছানোর পর থেকে, আলোনা ফারতুখোভা প্রতিদিনই বার্লিনের ইউক্রেনিয়ান অর্থোডক্স খ্রীস্টান সম্প্রদায়ে আসছেন। ২০ বছর বয়সী এই শরণার্থী, শান্তির উদ্দেশ্যে করা প্রাত্যহিক প্রার্থনায় যোগ দিচ্ছেন এবং তার স্বদেশবাসীর জন্য দান সংগ্রহ কার্যক্রম সংগঠনে সহায়তা করছেন।

রবিবার, জার্মানীর রাজধানীর একটি লাল ইটের তৈরি গীর্জায় ইউক্রেনের আরও কয়েক ডজন উপাসনাকারীর সাথে তিনি প্রার্থনায় যোগ দেন। সেখানে তারা একসাথে গান করেন, মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করেন, এবং সম্প্রদায়টির প্রধান, ফাদার ওলেহ পোলিয়াঙ্কো’র কাছ থেকে আশীর্বাদ গ্রহণ করেন। এরপর তারা ইউক্রেনে পাঠানোর জন্যে, ক্রাচ, স্লিপিং ব্যাগ, শিশুদের ডায়াপার, গামি বেয়ার ক্যান্ডির বড় বড় বাক্স ও গীর্জার বিভিন্ন স্থানে জমতে থাকা আঁচারের বয়ামগুলো বড় বড় কার্ডবোর্ডের বাক্সে ভরেন।

গীর্জার আসনগুলোতে বাক্সগুলো সাজিয়ে রাখতে রাখতে, বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত এই ছাত্রী বলেন, “এগুলো আমাদের সেনাবাহিনীর জন্য সামান্য সাহায্য, এবং এখানে… শিশুদের জন্য অনেক জিনিসপত্র”। তিনি একাই ইউক্রেন ছেড়ে পালিয়ে এসেছেন এবং এখন বার্লিনের একটি হোটেলে বাস করছেন। তিনি বলেন, “এটা ভালো যে অনেকেই আমাদের সাহায্য করছেন, আমরা সত্যিই এটার কদর করি”।

সমগ্র ইউরোপ জুড়েই ইউক্রেনের মানুষজন, তাদের যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটিতে শান্তির জন্য প্রার্থনা করতে রবিবার গীর্জায় সমবেত হন। জার্মানী থেকে শুরু করে রোমানিয়া বা মলডোভা পর্যন্ত, সমগ্র ইউরোপ মহাদেশ জুড়েই উপাসনালয়গুলোতে, নতুন আগত শরণার্থীরা ইউরোপে দীর্ঘদিন ধরে বসবাসকারী ইউক্রেনের ১৫ লক্ষ অভিবাসীর সাথে মেলামেশা করেন।

তিন সপ্তাহেরও বেশি আগে রাশিয়া ইউক্রেনে আক্রমণ করার পর থেকে, জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থার (ইউএনএইচসিআর) তথ্যমতে, ৩৩ লক্ষ ৮০ হাজারেরও বেশি মানুষ ইউক্রেন ছেড়ে পালিয়ে গিয়েছেন। সবমিলিয়ে ১ কোটি মানুষ নিজেদের ঘর ছেড়ে পালিয়েছেন। তাদের মধ্যে ৬০ লক্ষেরও বেশি মানুষ দেশটিতে অভ্যন্তরীণভাবে বাস্তুচ্যুত হয়েছেন বলে, ইউএনএইচসিআর রবিবার জানায়।

XS
SM
MD
LG