অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

নিহত রয়টার্স ফটোগ্রাফারের বাবা-মা তালিবানের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নিচ্ছেন


ভারতের মুম্বাইয়ে একটি আর্ট স্কুলের বাইরে রয়টার্সের সাংবাদিক দানিশ সিদ্দিকীর স্মৃতিতে একজন শিল্পী একটি চিত্রকর্ম আঁকা শেষ করছেন। ১৬ জুলাই,২০২১, ছবি-রয়টার্স/ফ্রান্সিস মাসকারেনহাস

গতবছর আফগানিস্তানের তালিবান হামলায় নিহত রয়টার্স ফটোগ্রাফার দানিশ সিদ্দিকির বাবা-মা আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে এই ইসলামপন্থি দলটির বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেয়া শুরু করেছেন।

গত বছরের ১৬ জুলাই তালিবানের কাছ থেকে আফগানিস্তান-পাকিস্তান সীমান্তের শহর স্পিন বোল্ডাক পুনরুদ্ধারের জন্য সরকারি সৈন্যদের ব্যর্থ প্রচেষ্টার সময়ে পুলিৎজার পুরষ্কার জয়ী দানিশ সিদ্দিকী নিহত হন। তিনি তখন আফগানিস্তান স্পেশাল ফোর্সের সাথে ছিলেন।

নয়াদিল্লি ভিত্তিক আইনজীবী আভি সিং এক অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে বলেন,৬ জন তালিবান নেতা ও অন্যান্য অজ্ঞাত কমান্ডারের বিরুদ্ধে দানিশের বাবা-মা হেগ’এ অবস্থিত আইসিসির আইনি ব্যবস্থা চেয়েছিলেন। কারণ তাদের ছেলে একজন ফটোসাংবাদিক ও ভারতীয় নাগরিক হওয়ায় উক্ত দলটি তাকে টার্গেট করে এবং হত্যা করে।

এ ব্যপারে ২ জন তালিবান নেতার মন্তব্য জানতে চেয়ে রয়টার্স কল করলে ও মেসেজ পাঠালে তারা জবাব দেননি।

দানিশ নয়াদিল্লিতে ছিলেন। আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্ররা ২০ বছরের দীর্ঘ যুদ্ধের অবসান ঘটাতে সৈন্য প্রত্যাহার করলে, আফগানিস্তান পুনরুদ্ধারের উদ্দেশ্যে পরিচালিত তালিবান অভিযান কভার করতে সেখানে যান তিনি।

দানিশ(৩৮) “তালিবান দ্বারা অবৈধভাবে আটক,নির্যাতন ও হত্যার শিকার হন এবং তার দেহ বিকৃত করা হয়” আভি সিং ও দানিশের পরিবার সংবাদ সম্মেলনের আগে জারি করা এক বিবৃতিতে একথা জানান।

গত আগস্টে তালিবান মুখপাত্র মুজাহিদ দানিশকে বন্দি ও মৃত্যুদন্ড কার্যকর করার সংবাদ অস্বীকার করেন এবং আফগান নিরাপত্তা বাহিনী ও ভারতীয় সরকারি কর্মকর্তাদের ‘সম্পূর্ণ ভুল’ বলে প্রত্যাখ্যান করেন।

এর আগে রয়টার্স রিপোর্ট করে যে, তারা “তালিবান ইচ্ছাকৃতভাবে দানিশ সিদ্দিকীকে হত্যা করেছে বা তার লাশ অপবিত্র করেছে তা নিরপেক্ষভাবে নির্ধারণ করতে পারেনি।"

XS
SM
MD
LG