অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

থাইল্যান্ড ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা শিথিল করার পর মহামারী বিধিনিষেধ হ্রাসের পথে


থাইল্যান্ডে আসার পরে অবশ্যই দর্শনার্থীদের পিসিআর টেস্ট করাতে হয়। সাধারণত তাদের হোটেলেই এ টেস্ট করা হয়ে থাকে। (টম ওয়াকার/ভিওএ)

সম্প্রতি কিছু করোনা ভাইরাস ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার পর ৩ মাসের মধ্যে মহামারী অবস্থা হ্রাস করার জন্য চাপ দিচ্ছে থাইল্যান্ড।

পর্যটন বৃদ্ধির উদ্দেশে গত সপ্তাহে থাইল্যান্ডে দর্শনার্থীদের জন্য আগমনপূর্ব পিসিআর টেস্ট বন্ধ করা হয়েছে। যদিও বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করেছেন যে, সংক্রমণের প্রাদুর্ভাব ও জনসাধারণের মধ্যকার ভীতি মহামারীর স্থানীয় রোগে রূপান্তরিত হওয়াকে বাধাগ্রস্ত করতে পারে।

এ মাসের শুরুতে থাইল্যান্ডের স্বাস্থ্য মন্ত্রক বলেছিল, দেশে করোনা মহামারীকে জুলাইয়ের মধ্যে একটি স্থানীয় রোগ হিসাবে চিহ্নিত করা হবে, যা "স্বাভাবিক জীবনে" ফিরে আসার ক্ষেত্রে প্রভাবকের কাজ করবে।

থাইল্যান্ডের ন্যাশনাল সেন্টার ফর জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড বায়োটেকনোলজির একজন ভাইরোলজিস্ট এবং গবেষক ডাঃ আনান জংকাউওয়াত্তানা বলেছেন, স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা মহামারীর স্ট্যাটাস কমানোর সিদ্ধান্ত নিলেও করোনা ভাইরাস সম্পর্কে সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।

থাইল্যান্ডে এখনো কোভিডের ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের প্রচুর কেস সনাক্ত হচ্ছে। শুক্রবারে ২৭ হাজার ৭১ টি নতুন সংক্রমণের সর্বোচ্চ দৈনিক রেকর্ড ছিল।

ইতিবাচক দিক হলো, থাইল্যান্ডে টিকা দেয়ার হারও বেশি। ৭ কোটি জনসংখ্যার দেশ থাইল্যান্ডে দেশটির স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ গত বছর থেকে করোনা ভাইরাস টিকার ১ম, ২য় ও বুস্টার ডোজের প্রায় ১২ কোটি ৭০ লাখ ডোজ টিকা প্রদান করে।

মালেশিয়ার কুয়ালালামপুর ভিত্তিক এশিয়া পর্যটন বিশ্লেষক গ্যারি বোওয়ারম্যান বলেছেন, থাইল্যান্ডের মতো দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোকে করোনভাইরাসের অ-অনুমানযোগ্যাতার কারণে ভবিষ্যতের লক্ষ্য নির্ধারণের সময় সাবধানে চলতে হবে।

XS
SM
MD
LG