অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

২০১৭ সালের পর প্রথম আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করলো উত্তর কোরিয়া


দক্ষিণ কোরিয়ার সিউলের সিউল রেলওয়ে স্টেশনে টিভিতে একটি সংবাদ প্রোগ্রামে উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণের ফাইল ছবি দেখছে যাত্রীরা। ২৪ মার্চ,২০২২। (ছবি- এপি)

বৃহস্পতিবার উত্তর কোরিয়া আপাতদৃষ্টে একটি আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করেছে। জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ার সরকার জানিয়েছে, ২০১৭ সালের পর এটিই পিয়ংইয়ং-এর প্রথম দূরপাল্লার উৎক্ষেপণ।

জাপানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক বলেছে যে, উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্রটি জাপানের উত্তরাঞ্চলের আওমেরি এলাকা থেকে মাত্র ১৭০ কিলোমিটার পশ্চিমে জাপানের বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে অবতরণের পূর্বে ৭০ মিনিটেরও বেশি সময় ধরে বাতাসে উড়ন্ত অবস্থায় ছিল।

জাপানের কর্মকর্তারা জানান,এটি একটি নতুন ধরনের আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র (আইসিবিএম) বলে মনে হচ্ছে । তারা আরও জানান, ক্ষেপণাস্ত্রটি ৬ হাজার কিলোমিটার উচ্চতায় পৌঁছেছিল এবং এর সীমা ছিল ১১০০ কিলোমিটার।

দক্ষিণ কোরিয়ার জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের জরুরি বৈঠকে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইন এ উৎক্ষেপণের ‘কঠোর নিন্দা’ জানিয়েছেন এবং বলেছেন, এটি দূরপাল্লার উৎক্ষেপণে উত্তর কোরিয়ার স্ব-আরোপিত স্থগিতাদেশ লঙ্ঘন করেছে।

২০১৬ সাল থেকে উত্তর কোরিয়া স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করেনি। উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন ও আমেরিকার সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যে উত্তেজনা চলাকালীন ২০১৭ সালে দেশটির সর্ব সাম্প্রতিক আইসিবিএম পরীক্ষাটি হয়েছিল।

ট্রাম্প ও কিমের দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিপক্ষ প্রেসিডেন্ট মুন জা-ইনের সাথে আলোচনার মধ্যেই ২০১৮ সালে কিম জং উন আইসিএমবি ও পারমাণবিক পরীক্ষার ওপর স্ব-আরোপিত স্থগিতাদেশ ঘোষণা করেছিলেন। সে স্থগিতাদেশ এখন বিলুপ্ত বলে মনে হচ্ছে।

উত্তর কোরিয়া এ বছর ১২ রাউন্ড ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছে যার মধ্যে, তারা বলছে, অন্তত দুটি ছিল স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের জন্য প্রস্তুতি।

উত্তর কোরিয়ার সর্বশেষ উৎক্ষেপণে কোনো স্যাটেলাইট জড়িত কিনা তা এখনো স্পষ্ট নয়। পরীক্ষা নিয়ে উত্তর কোরিয়া কোনো মন্তব্য করেনি। দেশটি সাধারণত রাষ্ট্রীয় প্রচারমাধ্যমে পরের দিন সকাল পর্যন্ত তাদের ক্ষেপণাস্ত্র কার্যক্রম ঘোষণা করে না।

XS
SM
MD
LG