অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সীমান্তে অচলাবস্থার অবসানই সম্পর্ক স্বাভাবিক করার প্রধান শর্ত, চীনকে জানাল ভারত


ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জয়শঙ্করের টুইটারে প্রকাশিত এই ছবিটিতে, জয়শঙ্কর এবং চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়্যাং ই, ভারতের নয়াদিল্লীতে তাদের বৈঠকের পূর্বে গণমাধ্যমকে অভ্যর্থনা জানাচ্ছেন, ২৫ শে মার্চ ২০২২, ছবি- এপি

নয়াদিল্লীতে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়্যাং ই এর সফরকালে ভারত এই বিষয়টির উপর জোর দিয়েছে যে, চীনের সাথে ভারতের স্বাভাবিক সম্পর্ক পুনর্বহাল হওয়াটা দেশ দুইটির মধ্যবর্তী সীমান্তে শান্তি পুনস্থাপনের উপর নির্ভরশীল। অপরদিকে, চীন বলেছে যে, আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক শান্তি ও স্থিতিশীলতার উন্নয়নে দেশ দুইটির একসাথে কাজ করা উচিৎ।

শুক্রবার তিন ঘন্টার আলোচনার পর, ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুব্রামানিয়াম জয়শঙ্কর সংবাদদাতাদের বলেন যে, তিনি চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে এই বিষয়ে অবহিত করেছেন যে “চীনের সেনা মোতায়েনের কারণে ২০২০ সালের এপ্রিল থেকে যেই সংঘর্ষ ও উদ্বেগ দেখা দিয়েছে, সেটি প্রতিবেশী দেশ দুইটির মধ্যে একটি স্বাভাবিক সম্পর্কের মাধ্যমে মিটমাট করা সম্ভব নয়”।

দুই বছর ধরে সীমান্তে মুখোমুখি অবস্থানের কারণে, পরমাণু অস্ত্রধারী এই দুই প্রতিবেশী দেশের মধ্যকার সম্পর্কটির দুই বছর আগে দ্রুত অবনতি হওয়ার পর থেকে, ভারতে ওয়্যাং এর এই সফরটিই চীনের কোন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তার প্রথম নয়াদিল্লী সফর। দুই দেশের মধ্যকার সম্পর্কটিকে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনার প্রচেষ্টা হিসেবে দেখা হচ্ছে এই সফরটিকে।

আফগানিস্তানে একটি অপ্রত্যাশিত সফরের পরপরই চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ভারতের রাজধানীতে এসে পৌঁছান। সফরটির পূর্বে বেইজিং বা নয়াদিল্লী, কেউই সরকারিভাবে সেটির কোন ঘোষণা দেয়নি।

জয়শঙ্কর বলেন যে, দেশ দুইটির হিমালয় সংলগ্ন সীমান্তে মোতায়েন হয়ে থাকা হাজার হাজার সেনার সেখান থেকে সরিয়ে নেয়ার প্রক্রিয়াটি ত্বরান্বিত করার বিষয়টি আলোচনায় প্রাধান্য পায়।

নয়াদিল্লীতে ওয়্যাং এর সফরের পর প্রকাশিত এক বিবৃতিতে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রক বলে যে, সীমান্ত সংক্রান্ত বিষয়টি ঘিরে দুই পক্ষের মতানৈক্যগুলোকে, দেশ দুইটির নিজেদের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের মধ্যে “যথাযথ অবস্থানে” স্থান দেওয়া উচিৎ। সেটিতে আরও বলা হয় যে, চীন একটি “এক মেরু বিশিষ্ট এশিয়া” নীতি অনুসরণ করে না এবং অঞ্চলটিতে ভারতের ঐতিহ্যগত ভূমিকাটিকে শ্রদ্ধা করে।

ইউক্রেন সঙ্কট বিষয়ে তাদের মধ্যকার আলোচনা নিয়ে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন যে, অনতিবিলম্বে একটি যুদ্ধবিরতি এবং কূটনীতি ও আলোচনাকে প্রাধান্য দেওয়ার বিষয়ে দুই পক্ষই একমত হয়েছে। রাশিয়ার সাথে চীন এবং ভারতের গভীর সম্পর্ক রয়েছে। প্রতিবেশী দেশ ইউক্রেনে রাশিয়ার হামলাটির প্রতি নিন্দা জানানোর জন্য পশ্চিমা দেশগুলোর আহ্বানে সাড়া দিতে, ভারত ও চীন, উভয়ই অস্বীকৃতি জানিয়েছে।

XS
SM
MD
LG