অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ওমিক্রন ভেরিয়েন্টের কারণে ব্রিটেনে কোভিড-১৯ সংক্রমণ অনেক বেড়েছে


লন্ডনের অক্সফোর্ড স্ট্রিট দিয়ে মুখে মাস্ক পরে মানুষ হেঁটে যাচ্ছে। ২৩ ডিসেম্বর, ২০২১।

ব্রিটেনে রেকর্ড সংখ্যক মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছেন। সেখানে প্রায় ৫০ লক্ষ মানুষ বা প্রতি ১৩ জনে ১ জন রোগটিতে আক্রান্ত হয়েছেন বলে সরকারী তথ্য থেকে জানা গিয়েছে।

সংক্রমণ বৃদ্ধির খবরটি সেই একই দিনে প্রকাশ হয় যেদিন ব্রিটেন তাদের দেশের মানুষের জন্য কোভিডের র‌্যাপিড পরীক্ষাটি বিনামূল্যে প্রদান করা বন্ধ করে দেয়। এমন পদক্ষেপ, দেশটির প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের “লিভিং উইথ কোভিড” (কোভিড নিয়েই চলা) পরিকল্পনার একটি অংশ।

জনসনের পরিকল্পনা অনুযায়ী, কোভিডের সংক্রমণে অতিরিক্ত ঝুঁকিতে পড়বেন না, এমন ব্যক্তিদের কোভিড পরীক্ষা করানোর জন্য মূল্য পরিশোধ করতে হবে।

সংক্রমণের সংখ্যা বৃদ্ধির জন্য অত্যন্ত সংক্রামক ওমিক্রন বিএ.২ ধরণটিকে দায়ী করা হচ্ছে। ওমিক্রনের এই ধরণটির কারণে হাসপাতালে ভর্তি রোগী ও মৃত্যুর হার, উভয়ই বৃদ্ধি পাচ্ছে। তবে, কর্মকর্তারা বলছেন যে, এই মাসে এবং আগামী মাসে সংক্রমণের হার কমতে শুরু করার বিষয়ে আশা করা হচ্ছে।

ইউনিভার্সিটি অফ ইস্ট অ্যাঙ্গলিয়ার মেডিসিনের অধ্যাপক, পল হান্টার, দ্য গার্ডিয়ানকে বলেন, “যে কোন সংক্রমণ যেটি দ্রুত ছড়ায়, সেটিই দ্রুত সর্বোচ্চ মাত্রায় পৌঁছায় এবং অপরদিকে দ্রুত হ্রাসও পায়।”

অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস (এপি)-র একটি প্রতিবেদন অনুযায়ী, অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির জীববিদ্যার একজন অধ্যাপক বলেন যে, তিনি বিশ্বাস করেন এই গ্রীষ্মে দেশটির বেশিরভাগ মানুষই এই ধরণটি দ্বারা আক্রান্ত হবেন।

জেমস নাইস্মিথ বলেন, “এটা আক্ষরিক অর্থেই ভাইরাসটি দ্বারা আক্রান্ত হয়ে সেটি নিয়ে চলা।”

জন্স হপকিন্স করোনাভাইরাস রিসোর্স সেন্টার রবিবার জানায় যে তারা বিশ্বব্যাপী ৪৯ কোটিরও বেশি কোভিড আক্রান্ত এবং ৬০ লক্ষেরও বেশি মৃত্যুর বিষয়ে জানতে পেরেছেন। তাদের তথ্য অনুযায়ী, প্রায় ১,১০০ কোটি টিকা প্রয়োগ করা হয়েছে।

XS
SM
MD
LG