অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সাভারে হাফ ভাড়া দেওয়ায় কলেজছাত্রকে মারধরের ঘটনায় ৮ বাস আটক


সাভার মডেল থানার সামনে ভিড় করে আছে ছাত্র-ছাত্রীরা।

বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার উপকন্ঠে সাভারে হাফ ভাড়া দেওয়ায় এক কলেজছাত্রকে মারধরের ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার (৫ এপ্রিল) দুপুরে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের থানা স্ট্যান্ড এলাকায় ওয়েলকাম বাসের ভেতরে ওই কলেজছাত্রকে মারধর করা হয় বলে অভিযোগে প্রকাশ।

এ ঘটনায় ওয়েলকাম পরিবহনের আটটি বাস আটক করেন শিক্ষার্থীরা। এ ছাড়া ঘটনার বিচার দাবিতে সাভার মডেল থানায় অবস্থান নেন বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা।

মারধরের শিকার শিক্ষার্থী ইউনুস কবির সেলিম (১৮) আশুলিয়ার পলাশবাড়ী এলাকার মতিয়ার রহমানের ছেলে এবং সাভার সরকারি কলেজের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী। এ ছাড়া রিপনসহ আরও একজনকে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করা হয়েছে।

ভুক্তভোগী ইউনুস কবির সেলিম জানান, “আমরা দুজন আশুলিয়ার পলাশবাড়ী বাসস্ট্যান্ড থেকে সাভার থানা স্ট্যান্ডের উদ্দেশে ওয়েলকাম পরিবহনের একটি বাসে উঠি। পরে পল্লীবিদ্যুৎ থেকে আমাদের আরেক সহপাঠী ওঠে। আমরা থানা স্ট্যান্ডের একটু আগে পৌঁছালে কন্ডাক্টর বাসের ভাড়া চান। আমরা তিনজনের হাফ ভাড়া ২২ টাকার জায়গায় ৩০ টাকা দিই। শিক্ষার্থী পরিচয় দিলেও কন্ডাক্টর আমাদের অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করে মারধর করেন। এ সময় আমার হাত গাড়ির গ্লাসের সঙ্গে লেগে কেটে যায়। পরে আমার অন্য সহপাঠীরা বিষয়টি জানতে পারলে তারা সড়কে এসে ওয়েলকাম পরিবহনের আটটি বাস আটক করেন। এখন আমরা বিচারের দাবিতে থানায় অবস্থান নিয়েছি। আমরা ওই কন্ডাক্টর ও গাড়ি চালকের বিচার চাই”।

এ ব্যাপারে সাভার মডেল থানা পুলিশের পরিদর্শক (অপারেশন) মাকারিয়াস দাশ বলেন, “দুই পক্ষকে নিয়ে বসা হয়েছে। বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা চলছে”।

XS
SM
MD
LG