অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

নেটো আলোচনায় ইউক্রেনের দাবি: ‘অস্ত্র, অস্ত্র এবং অস্ত্র’


কিয়েভের নিকটবর্তী বুচায় বিধ্বস্ত রুশ ট্যাংকগুলোর মাঝে দিয়ে হেঁটে যাচ্ছেন ইউক্রেনের এক সৈনিক, ৬ এপ্রিল ২০২২।

রাশিয়ার সাথে সংঘাতে জড়িয়ে পড়ার ভয়ে, কিছু কিছু দেশের ইউক্রেনের অস্ত্রের সরবরাহের অনুরোধটিতে সাড়া দেওয়ার অনিচ্ছাটিকে, বৃহস্পতিবার অগ্রাহ্য করেছেন ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দ্যমিত্র কুলেবা। তিনি বলেন যে, ইউক্রেনের যা প্রয়োজন তা দিলে, ইউক্রেনীয়রা যুদ্ধটি করবে যাতে অন্য কারোও তা না করতে হয়।

কুলেবা বলেন, “আমার মনে হয় ইউক্রেন যে প্রস্তাব করছে সেটি ন্যায্য: আপনারা আমাদের অস্ত্র দিন, আমরা আমাদের জীবন উৎসর্গ করব, এবং যুদ্ধটি ইউক্রেনেই সীমাবদ্ধ থাকবে।”

ব্রাসেলসে নেটো পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সাথে একটি বৈঠকের আগে, নেটো মহাসচিব ইয়েন্স স্টলটেনবার্গের পাশাপাশি কুলেবাও বক্তব্য রাখেন। বৈঠকটিতে স্টলটেনবার্গ বলেন যে, ইউক্রেনের আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা, ট্যাঙ্ক-বিধ্বংসী অস্ত্র এবং অন্যান্য সহায়তার চাহিদার বিষয়গুলোতে মিত্ররা সাড়া দিবে।

কুলেবা বলেন, “আমরা যত বেশি অস্ত্র পাব, এবং সেগুলো যত দ্রুত ইউক্রেনে এসে পৌঁছাবে, তত বেশি মানুষ প্রাণে বেঁচে যাবে, তত বেশি শহর ও গ্রাম ধ্বংস হবে না, এবং ভবিষ্যতে আর কোন বুচা তৈরি হবে না।” বুচা হল রাজধানী কিয়েভের নিকটবর্তী একটি এলাকা, যেখানে পিছু হটতে থাকা রুশ সৈন্যদের বিরুদ্ধে বেসামরিক মানুষজনকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে।

রাশিয়ার বিরুদ্ধে পশ্চিমা দেশগুলোর আরোপ করা নতুন নিষেধাজ্ঞাগুলোকে স্বাগত জানান কুলেবা। তবে, তিনি আরও পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানিয়েছেন। তার মধ্যে রাশিয়ার তেল ও গ্যাসের উপর পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা জারি করা, আন্তর্জাতিক ‘সুইফট’ ব্যবস্থাটি থেকে রাশিয়ার সকল ব্যাংককে নিষিদ্ধ করা এবং সমুদ্রবন্দরগুলোতে রাশিয়ার জাহাজ ও পণ্য ভিড়ানো নিষিদ্ধ করার প্রস্তাব রয়েছে।


XS
SM
MD
LG