অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

পোর্ট এলিজাবেথেও হারই দেখছে বাংলাদেশ


পোর্ট এলিজাবেথ টেস্টের তৃতীয় দিনঃ বাংলাদেশ বনাম দঃ আফ্রিকা

পোর্ট এলিজাবেথ টেস্টে নিশ্চিত হারই দেখছে বাংলাদেশ। অন্যভাবে বললে, এই টেস্টে ডারবানেরই পুনরাবৃত্তি ঘটতে যাচ্ছে। ২৭৪ রানের লক্ষ্যে ডারবান টেস্টের চতুর্থ দিনের শেষ সেশনেই ৩ উইকেট হারিয়েছিল বাংলাদেশ। পোর্ট এলিজাবেথে তৃতীয় দিন শেষেই ৪১৩ রানের জবাবে ২৭ রানেই ৩ উইকেট নেই বাংলাদেশের।

রবিবার (১০ এপ্রিল) তৃতীয় দিন সকালে মুশফিকুর রহিমকে “ভরসা” বানিয়ে নেমেছিল বাংলাদেশ। সঙ্গে ছিলেন ইয়াসির আলী। দুজন বেশ ভালোই শুরু করেছিলেন। ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে এই দুজন ৭০ রানের একটা জুটি গড়েছিলেন। কিন্তু জুটিও বড় হয়নি। নিজেদের ইনিংসও বড় করতে পারেননি তারা।

৫০ থেকে ৪ রান দূরে থাকতে কেশব মহারাজের বলে তার হাতেই ক্যাচ তুলে দেন ইয়াসির। আউট হওয়ার আগে করেছিলেন ৮৭ বলে ৪৬। তার ইনিংসে ছিল ৭টি বাউন্ডারি।

তবে দৃষ্টিকটু ছিল মুশফিকুর রহিমের ফেরা। ফিফটি করেই তিনি তার “প্রিয়” রিভার্স সুইপ খেলতে গেলেন সাইমন হারমারের বলে। হয়ে গেলেন বোল্ড। ৮০টি টেস্ট খেলা মুশফিকের এমন শট ছিল অপ্রত্যাশিতই।

এরপর হুড়মুড় করেই ভেঙে পড়ে বাংলাদেশের ইনিংস। মেহেদী হাসান মিরাজ ১১ রান করেন। বাকিরা দাঁড়াতেই পারেননি। ২১৭ রানেই গুটিয়ে যায় বাংলাদেশের ইনিংস।

হারমার ও উইয়ান মুল্ডার নিয়েছেন ৩টি করে উইকেট। ডুয়ান অলিভিয়ের আর কেশব মহারাজ নিয়েছেন ২টি করে।

ফলোঅন এড়াতে তখনো ৩৬ রান বাকি ছিল বাংলাদেশের। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকা বাংলাদেশকে ফলোঅন করায়নি। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে ৬ উইকেটে ১৭৬ রান করে ইনিংস ঘোষণা করে তারা। বাংলাদেশের সামনে তখন পাহাড় সমান লক্ষ্য—৪১৩।

পোর্ট এলিজাবেথের এই মাঠে এর আগে সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জেতার রেকর্ডটি ২৭০ রানের। সেটি অস্ট্রেলিয়ার দখলে। কিন্তু রান তাড়া করে জেতার বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রেকর্ড ২১৫। কাগজে–কলমে এই টেস্টে জিততে রেকর্ড করেই জিততে হবে বাংলাদেশকে। কিন্তু নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে নেমেই যে ২৭ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বসেছে বাংলাদেশ। ফিরে গেছেন মাহমুদুল হাসান, নাজমুল হোসেন ও তামিম ইকবাল।

মাহমুদুল হাসান জাভেদ ওমরের পর দ্বিতীয় বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান হিসেবে “পেয়ার” অর্থাৎ জোড়া শূন্যে আউট হয়েছেন। মহারাজের বলে অফ স্টাম্পের বাইরে খোঁচা দিয়ে আউট হন তিনি। মহারাজের বলেই এলবির ফাঁদে পড়েছেন নাজমুল। তামিম আউট হয়েছেন হার্মারের বলে স্লিপে মুল্ডারের ক্যাচ হয়ে।

দিনের শেষ বেলায় বাংলাদেশকে আরও একবার ব্যাটিংয়ে নামানোর জন্যই দ্বিতীয় ইনিংসে আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। সারিল এরউয়ি করেছেন ৪১। কাইল ভেরেইনা ৩৯।

তাইজুল এই ইনিংসেও নিয়েছেন ৩ উইকেট। পোর্ট এলিজাবেথ টেস্টে তাইজুলের উইকেট সংখ্যা ৯। ২০২
রানে ৯ উইকেট নিয়েছেন তিনি। এর মাধ্যমে তাইজুল ছুঁয়ে ফেললেন বিদেশের মাটিতে সর্বোচ্চ উইকেট নেওয়া মেহেদী হাসান মিরাজ ও রবিউল ইসলামকে। দুজনেই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তাদের মাটিতেই ৯ উইকেট নিয়েছিলেন।

এদিকে রবিবার তৃতীয় দিন শেষে সংবাদ সম্মেলনে মুশফিকুর রহিমের রিভার্স সুইপ নিয়ে কথা বলতে হয়েছে টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদকে। তিনি বলেছেন, “মুশফিকের কাছে টেস্টের এমন পরিস্থিতি এই শট মোটেও প্রত্যাশিত নয়। সে আমাদের শেষ স্বীকৃত ব্যাটসম্যান ছিল। তার কাছ থেকে এমন শট দুর্ভাগ্যজনক। ওয়ানডে বা টি–টোয়েন্টিতে এই শট চলতে পারে, যেহেতু সেখানে দ্রুত রান তুলতে হয়। কিন্তু টেস্টে কেন। মুশফিকের ওই শট দেখে মনে হলো, সে যেন খেলাটা ছেড়েই দিল”।

XS
SM
MD
LG