অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইউক্রেনে রাশিয়ার যুদ্ধকে “গণহত্যা” অভিহিত করেছেন বাইডেন


প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন আইওয়ার মেনলোতে পোয়েট বায়োপ্রসেসিংয়ে বক্তৃতা দিচ্ছেন। ১২ এপ্রিল ২০২২

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে ইউক্রেনে “গণহত্যা” চালানোর জন্য দায়ী করে মঙ্গলবার (১২ এপ্রিল) যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন রাশিয়ার বিরুদ্ধে আরেক দফা কড়া অবস্থান নিয়েছেন।

“আপনার পারিবারিক খরচা বা জ্বালানির ক্রয়ক্ষমতা, এর কোনোটিই একজন স্বৈরশাসক পৃথিবীর অপর প্রান্তে কার বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে বা গণহত্যা করছে তার ওপর নির্ভর করা উচিত নয়”, বাইডেন পেট্রলের মুল্য হ্রাসে একটি সহায়তা কর্মসূচির প্রচারের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের আইওয়া রাজ্যে সফরকালে বলেন।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট পরে এয়ার ফোর্স ওয়ানে ওঠার আগে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় রাশিয়ার কর্মকাণ্ডকে গণহত্যা হিসেবে পুনর্ব্যক্ত করেন।

“আমি এটিকে গণহত্যা বলেছি, কারণ দিনে দিনে সেটা স্পষ্ট হচ্ছে। পুতিন কেবল ইউক্রেনীয় পরিচয়টি মুছে ফেলার চেষ্টা করছেন এবং তার অসংখ্য প্রমাণ হাতে আসছে”, বাইডেন বলেন।

“আমরা আন্তর্জাতিক আইনজীবীদের সিদ্ধান্তের অপেক্ষা করব। তারাই বিচার করবেন এটি গণহত্যা কি না। তবে আমার কাছে নিশ্চিতভাবে সেরকমই মনে হচ্ছে”, তিনি যোগ করেছেন।

কয়েক সপ্তাহ ধরে, পশ্চিমা ও ইউক্রেনীয় কর্মকর্তারা উত্তর ইউক্রেনের কিছু অংশ থেকে পশ্চাদপসরণকারী রুশ বাহিনী দ্বারা সংঘটিত নিয়মতান্ত্রিক নৃশংসতা এবং যুদ্ধাপরাধের প্রমাণ প্রাপ্তির অভিযোগ করেছেন।

যৎকিঞ্চিত আশা ছিল যে রাশিয়া ইউক্রেনে প্রায় দেড় মাস ধরে চলা তার আগ্রাসনের শিগগিরই সমাপ্তি ঘটাতে পারে। পুতিন মঙ্গলবার রাশিয়ার দূরপ্রাচ্যের ভোস্টোচনি মহাকাশ উৎক্ষেপণ কেন্দ্রের কর্মীদের সঙ্গে কথা বলার সময় সে সম্ভাবনাও উড়িয়ে দিয়েছেন।

মঙ্গলবার সফরের সময় রাশিয়ান নেতা বলেন, সামরিক বাহিনী তার ভাষ্যমতে “মহৎ” লক্ষ্য অর্জন না করা পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাবে।

রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের অভিযোগ

গত এক সপ্তাহে এই প্রথম যুদ্ধের বিষয়ে পুতিনের এই মন্তব্য নতুন যুদ্ধাপরাধের ইঙ্গিত দেয়। এসব অভিযোগের মধ্যে রয়েছে রাশিয়ান বাহিনী দক্ষিণে অবরুদ্ধ বন্দর শহর মারিউপোল দখল করার জন্য রাসায়নিক অস্ত্র হামলা চালিয়েছে।

রাশিয়ান কর্মকর্তারা ক্রমাগত এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন এবং উল্টো যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউক্রেন রাসায়নিক ও জৈবিক অস্ত্র ব্যবহারের প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা মঙ্গলবার বলেছেন যে, তারা রাশিয়ার বিরুদ্ধে সর্বশেষ অভিযোগগুলো গুরুত্ব সহকারে নিচ্ছেন। তবে সতর্ক করেছেন যে, রাসায়নিক অস্ত্র হামলার বিষয়টি নিশ্চিত করতে সময় লাগতে পারে।

মারিউপোলের দখল নিয়ে যুদ্ধ

রাশিয়া ও ইউক্রেনের সেনারা শহরটির নিয়ন্ত্রণের জন্য তুমুল লড়াই করছে।

ইউক্রেনীয় কর্মকর্তারা অনুমান করেছেন যে রাশিয়ান বিমান হামলা এবং গোলাবর্ষণের ফলে মারিউপোলে প্রায় ২২ হাজার মানুষ মারা গেছেন।

কিছু ইউক্রেনীয় এবং ইউক্রেনীয়-সমর্থিত বাহিনীর সামাজিক মাধ্যমের পোস্টে বলা হয়েছে দেশটির অস্ত্র শেষ হয়ে যাচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা মঙ্গলবার বলেছেন যে, রাশিয়া এখনো নিয়ন্ত্রণ নিতে সক্ষম হয়নি।

ইউক্রেনে পশ্চিমা সহায়তা

শিগগিরই ইউক্রেনের জন্য পশ্চিমের আরও সহায়তা পৌঁছাবে।

বাইডেন এবং ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন মঙ্গলবার “রাশিয়ার চলমান নৃশংসতার মুখে ইউক্রেনে নিরাপত্তা ও মানবিক সহায়তা প্রদান অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেছেন”, হোয়াইট হাউস এক বিবৃতিতে বলেছে।

পেন্টাগন বলেছে যে, যুক্তরাষ্ট্র থেকে গোলাবারুদ, মেশিনগান, বডি আর্মার এবং বিস্ফোরকগুলোর দুটি চালান সোমবার এই অঞ্চলে পৌঁছেছে। একই রকম একটি চালান আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে পৌঁছাবে।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেন্সকি বারবার পশ্চিমাদের কাছে আরও নিরাপত্তা সহায়তা চেয়েছেন।

মঙ্গলবার শেষার্ধে রয়টার্স জানিয়েছে যে, যুক্তরাষ্ট্র বুধবারের প্রথম দিকে ইউক্রেনের জন্য ৭৫০ মিলিয়ন ডলার মূল্যের আরেকটি সুরক্ষা প্যাকেজ ঘোষণা করবে বলে আশা করা হচ্ছে।

গত সপ্তাহের শেষের দিকে স্লোভাকিয়া ইউক্রেনকে এস-৩০০ বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা পাঠিয়েছে।

ইউক্রেন মিত্রদেরকে রাশিয়ার তৈরি মিগ-২৯ যুদ্ধবিমান সরবরাহ করতে বলেছে।

পৃথকভাবে মঙ্গলবার জেলেন্সকি ঘোষণা করেছেন যে, ইউক্রেনীয় বাহিনী রাশিয়া-সমর্থিত বিরোধী নেতা ভিক্টর মেদভেদচুককে আটক করেছে।

মেদভেদচুক রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে গৃহবন্দী ছিলেন। কিন্তু ইউক্রেনীয় কর্মকর্তাদের মতে, তিনি রাশিয়ান আক্রমণ শুরুর পরপরই পালিয়ে যান।

[ভয়েস অফ আমেরিকার সিন্ডি সাইন, নাইকি চিং এবং স্টিভ হারম্যান এই প্রতিবেদনে সাহায্য করেছেন। এই প্রতিবেদনের জন্য কিছু তথ্য দ্য অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস, এজেন্সি ফ্রান্স-প্রেস ও রয়টার্স থেকে নেওয়া হয়েছে]

XS
SM
MD
LG