অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

লিবিয়া উপকূলে নৌকাডুবি,৩৫ জন নিহত বলে ধারণা করছে জাতিসংঘ


ফাইল ছবি: সমুদ্রে নৌকা ডুবি, এপি

অভিবাসন-প্রত্যাশীদের বহনকারী একটি নৌকা লিবিয়ার উপকূলবর্তী সাগরে উল্টে গিয়েছে। এতে অন্তত ৩৫ জন নিহত হন বা নিহত হয়েছেন বলে অনুমান করা হচ্ছে। জাতিসংঘের অভিবাসন সংস্থা শনিবার এমন তথ্য জানিয়েছে।

আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম) জানায় যে, লিবিয়ার পশ্চিমাঞ্চলের সাবরাথা শহরের অদূরে নৌকাডুবির ঘটনাটি ঘটে। শহরটি মূলত আফ্রিকার অভিবাসন-প্রত্যাশীদের ভূমধ্যসাগর পাড়ি দেওয়ার বিপজ্জনক যাত্রা শুরুর একটি মূখ্য স্থান।

আইওএম জানিয়েছে যে ছয়জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। নিখোঁজ থাকা আরও ২৯ জনও নিহত হয়েছেন বলে ধরে নেওয়া হয়েছে। কাঠের তৈরি নৌকাটির উল্টে যাওয়ার কারণ তাৎক্ষণিকভাবে পরিষ্কার নয়।

ইউরোপে উন্নততর জীবনের আশায় উত্তর আফ্রিকা থেকে যাত্রা করা অভিবাসন-প্রত্যাশীদের সর্বসাম্প্রতিক মর্মান্তিক ঘটনা এটি। আইওএম এর তথ্যমতে, শুধুমাত্র গত সপ্তাহেই লিবিয়ার উপকূলে অন্তত ৫৩ জন অভিবাসন প্রত্যাশীর নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে বা নিহত হয়েছেন বলে অনুমান করা হচ্ছে।

এর আগে্ এই মাসে, লিবিয়া ছেড়ে যাওয়ার কয়েকদিন পর, ৯০ জনেরও বেশি যাত্রীর ভিড়ে উপচে পড়া একটি নৌকা ভূমধ্যসাগরে ডুবে যায় বলে, ডক্টরস উইদাউট বর্ডারস নামের সাহায্য সংস্থাটি জানায়।

ইউরোপে পৌঁছানোর মরিয়া চেষ্টায় অভিবাসন-প্রত্যাশীরা নিয়মিতভাবেই লিবিয়া থেকে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দেওয়ার উদ্দেশ্যে যাত্রা করেন। আফ্রিকা ও মধ্যপ্রাচ্যের যুদ্ধ ও দারিদ্র্য থেকে পালাতে অভিবাসন-প্রত্যাশীদের জন্য লিবিয়া একটি প্রধান গমণপথ হয়ে উঠেছে।

মানব পাচারকারীরা সাম্প্রতিক সময়ে লিবিয়ার বিশৃঙ্খলার ফায়দা নিয়েছে। আশপাশের ছয়টি দেশের সাথে লিবিয়ার দীর্ঘ সীমান্ত ব্যবহার করে তেল সমৃদ্ধ দেশটিতে অভিবাসন-প্রত্যাশীদের পাচার করে আনা হয়। তারপর সাধারণত তাদেরকে অনুপযোগী রাবারের নৌকায় ঠেসে তোলা হয় এবং বিপজ্জনক একটি সমুদ্রযাত্রায় ছেড়ে দেওয়া হয়।

XS
SM
MD
LG